>> বরগুণায় সাগরে ট্রলার ডুবি ৪ জেলে উদ্ধার ৪ জন নিখোঁজ >> টেষ্ট অধিনায়কত্ব হারালেন মুশফিকুর রহিম >> নতুন টেষ্ট অধিনায়ক সাকিব আল-হাসান সহ-অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ

ট্রাম্পের ঘোষণায় পশ্চিম তীরে সংঘর্ষ শুরু বিশ্বব্যাপী নিন্দা

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Palestine reactsমার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সারা বিশ্বের বিরোধিতা ও প্রতিবাদ উপেক্ষা করে এবং আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে ফিলিস্তিনের জেরুজালেম শহরকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বুধবার রাতে অধিকৃত পশ্চিমতীরে ফিলিস্তিনি ও ইসরাইলিদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়েছে এবং তা বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে ক্ষয়ক্ষতির বিস্তারিত খবর পাওয়া যায় নি।

ট্রাম্পের ঘোষণার বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় বিশাল বিক্ষোভ হয়েছে। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে ট্রাম্পের ঘোষণার পরপরই প্রায় ২ লক্ষ ৫০ হাজার মানুষ গাজার রাস্তায় নেমে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে।

ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ট্রাম্পের ঘোষণার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, তা ‘আগুন নিয়ে খেলার’ শামিল’। তিনি জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ট্রাম্পের একতরফা স্বীকৃতির ঘোষণাকে ধিক্কার জানিয়ে প্রত্যাখ্যান করেন।

‘জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের চিরন্তন রাজধানী’ হিসেবে উল্লেখ করে মাহমুদ আব্বাস আরও বলেন, ‘বুধবারের এই ঘোষণার পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আর ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকায় থাকতে পারে না।’

তিনি বলেন, এ ধরনের ঘোষণা দিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ফিলিস্তিনের ইতিহাস পাল্টে দিতে পারবেন না। আন্তর্জাতিক সমাজে ট্রাম্পের এ স্বীকৃতির কোনো গ্রহণযোগ্যতা নেই।

গাজা ভিত্তিক ফিলিস্তিনি সংগঠন হামাস বলেছে, ট্রাম্প জেরুজালেমকে দখলদার ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে ফিলিস্তিনি জাতির প্রতি প্রকাশ্য শত্রুতা শুরু করেছেন।

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস, ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান কর্মকর্তা ফেডেরিকা মোঘেরিনি এবং সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ম্যারগট ওয়ালষ্ট্রম মার্কিন প্রেসিডেন্টের ঘোষণাকে ‘বিপর্যয়কর’ বলে অভিহিত করেছেন।

জাতিসংঘে বলিভিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি বলেছেন, তিনি এ বিষয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের জরুরী সভা আহবান করতে বলবেন।

250000 Gazans protest Trumps recognition of Jerusalemএদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী করার যে ঘোষণা দিয়েছেন তার তীব্র নিন্দা জানিয়ে ইরান বলেছে, এ ঘটনায় ফিলিস্তিনে আরেকটি ইন্তিফাদা বা গণজাগরণ দেখা দেবে, সহিংসতা ছড়িয়ে পড়বে এবং তার জন্য আমেরিকা-ইসরাইল দায়ী থাকবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের ঘোষণার নিন্দা জানিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। তিনি বলেছেন, ট্রাম্পের এ ঘোষণা ‘অগঠনমূলক’। তিনি আরও বলেছেন, ব্রিটেন তার দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে স্থানান্তর করবে না।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রঁ জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানীর স্বীকৃতি সংক্রান্ত ট্রাম্পের একতরফা ঘোষণাকে ‘দুঃখজনক’ বলে মন্তব্য করেছেন।

ইরাকের প্রধানমন্ত্রী চরম উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, আমেরিকার এ ঘোষণা মধ্যপ্রাচ্যের স্থিতিশীলতা বিনাশ করবে।

কাতার বলেছে, ট্রাম্পের এ ঘোষণা কথিত শান্তি আলোচনার জন্য মৃত্যুদণ্ডের শামিল।

সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ মার্কিন ঘোষণাকে বিপজ্জনক বলে মন্তব্য করেছেন।

জর্দানও এ পদক্ষেপকে নাকচ করেছে। তারা বলেছে, এ ঘোষণার মধ্যদিয়ে ট্রাম্প জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাব লঙ্ঘন করেছেন।

মার্কিন পদক্ষেপে মরক্কো গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

এ ছাড়া, মিশর, তুরস্ক, লেবানন, সিরিয়া ও পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা পৃথক পৃথক বিবৃতিতে ট্রাম্পের ঘোষণার নিন্দা জানিয়ে তা প্রত্যাখ্যান করেছেন।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ০৭.১২.২০১৭


মতামত দিন