>> কোথাও কোথাও মাঝারি ধরণের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে >> স্পেনের বার্সেলোনায় পথচারীদের উপর ভ্যান নিহত ১৩ আহত ৫০ >> সিরিয়ায় মার্কিন জোটের বিমান হামলায় ৬ বেসামরিক ব্যক্তি নিহত

১৯ বছর পর দেশের মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের টেষ্ট সিরিজ জয়

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

England wins test series against South Africaমঈন আলীর অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ১৯ বছর পর দেশের মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেষ্ট সিরিজ জয় করলো ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় ইনিংসে মঈনের ৫ উইকেট শিকারে ওল্ড ট্রাফোর্ডে সিরিজের চতুর্থ ও শেষ টেষ্ট ১৭৭ রানের ব্যবধানে জিতে নেয় ইংলিশরা। এই জয়ে চার ম্যাচের সিরিজ ৩-১ ব্যবধানে জিতলো জো রুটের দল। সর্বশেষ ১৯৯৮ সালে দেশের মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেষ্ট সিরিজ জিতেছিলো ইংল্যান্ড। এরপর তিনটি সিরিজের দু’টিতেই হারে ইংলিশরা। একটি হয় ড্র।

৮ উইকেটে ২২৪ রান নিয়ে চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করে ইংল্যান্ড। এসময় মঈন ৬৭ ও স্টুয়ার্ট ব্রড শূন্য রানে অপরাজিত ছিলেন। কিন্তু বাকি দু’উইকেট তাড়াতাড়ি পড়ে গেলে ২৪৩ রানে গুটিয়ে যায় স্বাগতিকদের দ্বিতীয় ইনিংস। ব্রড ৫ ও জেমস এন্ডারসন ২ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার মরনে মরকেলের শিকার হন। তবে ৯টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৬৬ বলে ৭৫ রানে অপরাজিত থেকে যান মঈন। দক্ষিণ আফ্রিকার মরকেল ৪টি ও ডোয়াইন ওলিভার ৩টি উইকেট নেন।

জয়ের জন্য ৩৮০ রানের টার্গেট দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য কঠিনই ছিলো। কারণ রেকর্ড বলছে, এই মাঠে ৩০০ রানের টার্গেটই আজ পর্যন্ত কোন দল স্পর্শ করতে পারেনি। ইতিহাস বদলে দেয়ার লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে ৪০ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারিয়ে বসে প্রোটিয়ারা। হেইনো কুন ১১, ডিন এলগার ৫ ও তেম্বা বাভুমা ১২ রান করে আউট হন।

এরপর চতুর্থ উইকেটে দলকে খাদের কিনারা থেকে তুলেন ওপেনার হাশিম আমলা ও অধিনায়ক ফাফ ডু-প্লেসিস। তাদের লড়াইয়ে ভালো কিছুর ইঙ্গিতই দিচ্ছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা। এমন সময় হঠাৎই বল হাতে জ্বলে উঠেন মঈন।

দলীয় ১৬৩ রানে ডিআরএসের সহায়তায় আমলাকে বিদায় করেন মঈন। এরপরের ওভারেই উইকেটরক্ষক কুইন্ট ডি কককে ১ ও থিউনিস ডি ব্রুনকে ০ রানে ফেরত পাঠান তিনি। টেষ্ট ক্যারিয়ারের ৩৫তম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে ৮৩ রানে থামেন আমলা। ১৩টি চার ও ১টি ছক্কা দিয়ে নিজের ১৫৯ বলের ইনিংসটি সাজান তিনি।

এরপর নিজের লড়াইটাকে বেশি দূর নিতে টেনে নিয়ে যেতে পারেননি ডু-প্লেসিসও। ক্যারিয়ারের ১৪তম হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নিয়ে ৮টি চারে ৮৫ বলে ৬১ রানে আউট হন তিনি।

আর শেষ দিকে মঈন আরও দু’উইকেট শিকার করলে ২০২ রানেই অলআউট হয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ইংল্যান্ডের মঈন ৬৯ রানে ৫ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হন। টেষ্ট ক্যারিয়ারে চতুর্থবারের মত ৫ উইকেট নিলেন তিনি। আর সিরিজে দ্বিতীয়বারের মত ইনিংসে ৫ বা ততোধিক উইকেট নিয়ে নিজের শিকার সংখ্যাটা ২৫-এ নিয়ে গেছেন মঈন। তাই সিরিজ সেরার পুরস্কারও পেয়েছেন মঈন। ব্যাট হাতেও ২৫২ রান করেছেন তিনি। ১৯ উইকেট শিকার করে মঈনের সাথে যৌথভাবে সিরিজ সেরা দক্ষিণ আফ্রিকার মরকেলও।

এবারের সফরে তিন ফরম্যাটেই ইংল্যান্ডের কাছে হারলো দক্ষিণ আফ্রিকা। টেষ্ট সিরিজের আগে তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও টুয়েন্টি সিরিজ ২-১ ব্যবধানে হেরেছিলো প্রোটিয়ারা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ইংল্যান্ড
৩৬২ ও ২৪৩, ৬৯.১ওভার (মঈন ৭৫*, রুট ৪৯, মরকেল ৪/৪১)।

দক্ষিণ আফ্রিকা
২২৬ ও ২০২, ৬২.৫ ওভার (আমলা ৮৩, ডু-প্লেসিস ৬১, মঈন ৫/৬৯)।

ফল : ইংল্যান্ড ১৭৭ রানে জয়ী।
সিরিজ : চার ম্যাচের সিরিজ ৩-১ ব্যবধানে জিতলো ইংল্যান্ড।
ম্যাচ সেরা : মঈন আলী (ইংল্যান্ড)।
সিরিজ সেরা : মঈন আলী (ইংল্যান্ড) ও মরনে মরকেল (দক্ষিণ আফ্রিকা)।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ০৮.০৮.২০১৭


মতামত দিন