>> জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ ৩০ ডিসেম্বর : শিক্ষামন্ত্রী >> ইয়েমেনের রাজধানী সানায় আবার সৌদি বিমান হামলা নিহত ৩ >> হবিগঞ্জে ট্রাক-পিকআপ সংঘর্ষে ২ জন নিহত

ডোকলামে ‘সীমিত’ সেনা অভিযান চালাতে পারে চীন?

সম্পাদকীয়ডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

China infantryডোকলাম থেকে ভারতীয় সেনাদের বিতাড়িত করতে ছোটখাটো সামরিক অবিযান চালাতে পারে চীন, এমন জল্পনা ভারথীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে শনিবার। চীনা গ্লোবাল টাইমস পত্রিকায় প্রকাশিত খবর বিশ্লেষন করে ভারতীয় গণমাধ্যমে খব, আগামী দু’সপ্তাহের মধ্যেই চীন এই অভিযান চালাতে পারে।

গ্লোবাল টাইমস্-এ প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, দীর্ঘ দিন ধরে ডোকলামে ভারত ও চীনা সেনা মুখোমুখি দাঁড়িয়ে রয়েছে। বার বার বলা সত্ত্বেও ভারত পিছু হটছে না। আর সে কারণেই নাকি চীনের এই সিদ্ধান্ত।

হু ঝিইয়ং নামে সাংহাই অ্যাকাডেমি অব সোশ্যাল সায়েন্সেস-এর এক রিসার্চ ফেলোকে উদ্ধৃত করে এ রিপোর্ট প্রকাশ করেছে গ্লোবাল টাইমস্। রিপোর্টে হু ঝিইয়ং জানিয়েছেন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ভারতের বিদেশ মন্ত্রণঅলয়কে সেনা প্রত্যাহার করতে বলবে চীন। তা যদি না করা হয় তাহলে আগামী দু’সপ্তাহের মধ্যেই সেনা অভিযান। কারণ, আর বেশি দিন চীনা সীমান্তে ভারতীয় সেনার অনুপ্রবেশ সহ্য করবে না চীন।

একই সঙ্গে গ্লোবাল টাইমস্ পত্রিকার সম্পাদকীয়তে গোটা পরিস্থিতির জন্য মোদীকে দায়ী করে বলা হয়েছে, তিনি চীনের প্রতি ‘কড়া অবস্থান’ নিতে গিয়ে নিজের দেশকে যুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছেন।

এদিকে, ভবারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্ত্র মোদীও তার সুর নরম করেছেন। শনিবার তিনি বলেন, আলোচনা ও বিতর্কই এশিয়ার প্রাচীন ঐতিহ্য। সংঘাত মেটাতে সেই আলোচনার পথেই তিনি বিশ্বাসী। ইয়াঙ্গুনে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে এক ভিডিও বার্তায় মোদী বলেন, ‘‘একবিংশ শতাব্দীতে গোটা বিশ্বই পরস্পরের সঙ্গে যুক্ত। একে অপরের উপর নির্ভরশীল। এর সামনে এখন অনেক চ্যালেঞ্জ। আমি আত্মবিশ্বাসী, এশিয়ার প্রাচীন ঐতিহ্য আলোচনা ও বিতর্কের মধ্যেই এর সমাধান খুঁজে পাওয়া যাবে।’’ নরেন্দ্র মোদী আলাপ-আলোচনার কথা বলে চীন তথা আন্তর্জাতিক মহলের সামনে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন বলেই মনে করছে কূটনৈতিক মহল।

ডোকালাম নিয়ে ভারত প্রথমে ‘যুদ্ধংদেহি’ মনোভাব দেখালেও এখন সুর নামিয়ে দৌত্যের পথেই ফিরতে চায়। মোদি চীন ও ডোকালাম নিয়ে উত্তেজনাকর বক্তব্য না রাখার জন্য মন্ত্রী ও দলীয় নেতাদের পরামর্শ দিয়েছেন্ গত বৃহস্পতিবার ভারতের সংসদে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ যুদ্ধের পথে না গিয়ে কূটনৈতিক পথেই ডোকলাম সমস্যা সমাধানের সূত্র নিয়ে আলোচনা করেছেন। এ জন্য দু’দেশকেই আগে ডোকলাম থেকে সেনা প্রত্যাহার করতে হবে এবং তার পর আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের পথ খুঁজে বের করার কথা বলেন সুষমা।

ডোকলাম নিয়ে ভারত সুর নরম করে আলোচনার বার্তা দিলেও চীনা বিশেষজ্ঞদের মন্তব্য উদ্ধৃত করে ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হয়, ডোকলাম থেকে ভারতীয় সেনা হঠাতে সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যে চীন সীমিত আকারের ‘মিলিটারি অপারেশন’ চালাতে পারে। ভারতের কিছু বিশেষজ্ঞও মনে করছেন, চীন বেশি দিন তাদের ভূমিতে ভারতীয় সেনা উপস্থিতি সহ্য করবে না।

অপরদিকে যাদের সীমান্তে চীনের সাথে বিরোধ, সেই ভূটানও ভারতের সকল পদক্ষেপকে নিরঙ্কুশ সমর্থন দিচ্ছে না। চীনের সাথে ভূটানের বর্তমান সম্পর্ক এবং ডোকালাম নিয়ে ভূটানের অবস্থান ভারতীয়দের মনেও সম্প্রতি সংশয় সৃষ্টি করেছে। ভূটানের রাজনৈতিক সমর্থন/অনুমোদন না পেলে ভারতের সকল পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক আইনের দৃষ্টিতে অবৈধ হয়ে পড়বে।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ০৬.০৮.২০১৭


Comments are closed.