>> ইরাক ও সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত আরও ৬১

সিদ্দিকুরের চোখে আলো ফেরার সম্ভাবনা কম : চিকিৎসক

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Siddiqur's mother and brotherকাগজ অনলাইন প্রতিবেদক: পুলিশের ‘কাঁদানে গ্যাসের শেলের’ আঘাতে আহত সরকারি তিতুমীর কলেজের ছাত্র মো. সিদ্দিকুর রহমানের চোখে অস্ত্রোপচার করেছেন চিকিৎসকরা। আজ শনিবার সকালে জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে তার দুই চোখে অস্ত্রোপচার করা হয়।

অস্ত্রোপচার শেষে হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক ইফতেখার মনির সাংবাদিকদের বলেন, সকাল সাড়ে নয়টার শুরু হয়ে দেড় ঘণ্টা ধরে দুই চোখ অস্ত্রোপচার হয়েছে। সিদ্দিকুর রহমানের ডান চোখের ভেতরের অংশ বের হয়ে আসছিল; তা যথাস্থানে বসানো হয়েছে। বাঁ চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে; রক্ত ছিল, তা পরিষ্কার করা হয়েছে।

ইফতেখার মনির আরও বলেন, সিদ্দিকুর রহমানের চোখের আলো ফিরে আসার সম্ভাবনা কম। বাকিটা পরে বলা যাবে।

‘সিদ্দিকরে তিন বছরের থুইয়া ওর বাপ মরছে। বড় পোলাডা রডের কাম কইরা ভাইডারে এতদূর পড়াইছে। এখন তো ওর চোখ গেছেগা, আমরা এখন কী করুম বাবা? পোলাডারে সরকার যেন একটা চাকরি দেয়। হেয় কী অপরাধ করছে?’

শনিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের ষষ্ঠতলার ৬২৮ নম্বর কক্ষের পাশে বসে কাঁদতে কাঁদতে কথাগুলো বলছিলেন শাহবাগে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত সরকারি তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী সিদ্দিকুর রহমানের মা সোলেমা বেগম।

২৫ বছর আগে স্বামীকে হারিয়েছেন সোলেমা। এরপর দুই ছেলেকে মানুষ করতে দিনের পর দিন অন্যের বাড়িতে কাজ করেছেন। সিদ্দিকুরের অস্ত্রোপচারের পর চিকিৎসকরা যখন জানালেন, চোখ ভালো হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ, তখন আর নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি এই মা। সিদ্দিকুরকে দেখতে আসা সহপাঠীদের দেখে কাঁদছিলেন আর প্রলাপ করছিলেন তিনি। মায়ের কাঁধে হাত রেখে পাশেই বসে ছিলেন সিদ্দিকুরের বড় ভাই নায়েব আলী।

উল্লেখ্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হওয়া রাজধানীর সাত সরকারি কলেজ ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা কলেজ, তিতুমীর কলেজ, কবি নজরুল কলেজ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ ও সরকারি বাঙলা কলেজের শিক্ষার্থীরা রুটিনসহ পরীক্ষার তারিখ ঘোষণার দাবিতে গত বৃহস্পতিবার শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনের রাস্তায় অবস্থান নেন। একপর্যায়ে শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে পুলিশ। তাদের লাঠিপেটাও করা হয়। ওই দিন পুলিশের ‘কাঁদানে গ্যাসের শেলের’ আঘাতে আহত হন মো. সিদ্দিকুর রহমান।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে শাহবাগ থানায় মামলা করা হয়েছে। মামলায় আসামি করা হয়েছে অজ্ঞাতনামা ১ হাজার ২০০ শিক্ষার্থীকে। এজাহারে শিক্ষার্থী সিদ্দিকুর রহমানের আহত হওয়ার বিষয়ে বলা হয়েছে, মিছিলকারীদের ছোড়া ফুলের টবের আঘাতে তিতুমীর কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র মো. সিদ্দিকুর রহমানের (২৩) দুই চোখ জখম হয়।

তবে ওই ঘটনার একটি ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা ব্যানার নিয়ে শাহবাগ থেকে কাঁটাবনমুখী সড়কে দাঁড়িয়ে বিক্ষোভ করছিলেন। তখন পুলিশের সদস্যরা গিয়ে তাদের ব্যানার কেড়ে নেন। এক পুলিশ সদস্য দৌড়ে এসে খুব কাছ থেকে শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য করে কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়েন। এরপরই সিদ্দিকুর রহমান মাটিতে পড়ে যান।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ২৩.০৭.২০১৭


Comments are closed.