>> বরগুণায় সাগরে ট্রলার ডুবি ৪ জেলে উদ্ধার ৪ জন নিখোঁজ >> টেষ্ট অধিনায়কত্ব হারালেন মুশফিকুর রহিম >> নতুন টেষ্ট অধিনায়ক সাকিব আল-হাসান সহ-অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ

আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের অভিযোগ নেই

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Obaidul-Quader-inister-ALআওয়ামী লীগের কোন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত অর্থপাচারের অভিযোগ পাওয়া যায়নি বলে মন্তব্য করেছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল এই মন্তব্য করেন।

‘আমাদের কারো বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত অর্থপাচারের কোনো অভিযোগ আমরা পাইনি। সুনির্দিষ্ট অভিযোগ প্রমাণিত হলে প্রশাসনিক এবং সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিব, বলেন ওবায়দুল।

‘অর্থপাচারের রেকর্ড বিএনপির আছে। তাদের নেতা তারেক রহমানের বিরুদ্ধে এফবিআই (যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত ব্যুরো) সাক্ষী দিয়ে গেছে। কোকোর টাকার কথা সিঙ্গাপুরে প্রমাণিত। তাদের মানিলন্ডারিং বিষয়টি সবার কাছে সুপরিচিত এবং আদালতে প্রমাণিত’, যোগ করেন ওবায়দুল।

সুইস ব্যাংকে পাচারের সঙ্গে রাজনীতির সম্পর্ক নাকচ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সুইস ব্যাংকে অর্থপাচারের সাথে রাজনৈতিক কোনো সম্পর্ক নেই। রাজনীতি করে কেউ এমন কাজ করলে, তাদের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান কঠোর এবং কোনো আপস হবে না।’

রাজধানীর গুলশানে গত বছরের পয়লা জুলাই স্প্যানিশ রেস্তোরাঁ হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার বিষয়ে ওবায়দুল বলেন, ‘হলি আর্টিজানের হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পর জঙ্গিবাদ নিরসনে বাংলাদেশ সরকার অনেক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। তবে আমরা তাতে সন্তুষ্ট নই।’

‘আমাদের দেশের প্রশাসনিক ফোর্স অনেক দক্ষতার প্রমাণ দিয়েছে, জঙ্গিবাদ নিরসনে অনেকে প্রাণ দিয়েছেন। কিন্তু আমাদের শুধু ফোর্সের ওপর নির্ভর করে থাকলে হবে না। আমরা সন্তুষ্ট সেদিনই হব, যেদিন দেশের সর্বস্তরের মানুষকে জঙ্গিবাদ নিরসনের ক্ষেত্রে ঐক্যবদ্ধ করাতে পারব। সেটাই হবে কার্যকরী পন্থা।’

জঙ্গিবাদ নিরসনে সহায়তায় বিএনপির মতো রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি আহ্বান জানানো হবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘যারা জঙ্গিবাদকে পৃষ্ঠপোষকতা করে, তাদের আহ্বান করে লাভ নেই। তাদের আহ্বান করে আরেকটা বিপদ ডেকে আনব নাকি?’

ঈদের পর বিএনপির আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষণার বিষয়ে করা এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আট বছরে বিএনপির কোনো নেতাকে আট মিনিটের জন্যও নামতে দেখিনি। তারা আন্দোলন এই বছর না ওই বছর করে আন্দোলনের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সেই বছর তো আর আসে না।’

জাতীয় সংসদে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেট পাস প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ভ্যাট আইন বাতিল ও আবগারি শুল্ক কম আদায়ের সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে বাজেট পাস হওয়ার মধ্য দিয়ে বিএনপি হতাশ হয়েছে। তারা ভেবেছিল বাজেট ইস্যুতে তারা ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রাপথকে রুদ্ধ করবে। কিন্তু এখন বিএনপি চুপসে গেছে, আবোল-তাবোল বকছে। যারা আবোল-তাবোল বকছে, তারা প্যাথলজিক্যাল লায়ার (স্বভাবজাত মিথ্যাবাদী)।’

দলের উপকমিটি ঘোষণা ও আট জেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের বিষয়ে আগামী কিছুদিনের মধ্যে আরেকটি বৈঠকের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত হবে বলে জানান ওবায়দুল। তিনি জানান, উপকমিটিতে শতাধিক সম্পাদক হবে না। তবে প্রতিটি ইউনিটে সদস্য ৩০ পর্যন্ত হতে পারে। যারা ইতিমধ্যে বিভিন্ন কমিটিতে আছে তারা যদি অনিবার্য হন তবে সদস্য হতে পারবেন। কিন্তু সম্পাদক পদে আসবেন না।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-হক হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, ডা. দীপু মনি, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, এনামুল হক শামীম, আহমদ হোসেন, বি এম মোজাম্মেল, মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক আফজাল হোসেন, শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক শামসুন্নাহার চাঁপা, ত্রাণ ও দুর্যোগবিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, উপদপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ৩০.০৬.২০১৭


Comments are closed.