>> বরগুণায় সাগরে ট্রলার ডুবি ৪ জেলে উদ্ধার ৪ জন নিখোঁজ >> টেষ্ট অধিনায়কত্ব হারালেন মুশফিকুর রহিম >> নতুন টেষ্ট অধিনায়ক সাকিব আল-হাসান সহ-অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ

সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশিদের আমানত বেড়েছে ১ হাজার কোটি টাকা

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Swiss Bankসুইজারল্যান্ডের বিভিন্ন ব্যাংকে বাংলাদেশিদের টাকা জমা রাখার পরিমাণ আরও বেড়েছে। যা আগের বছরের তুলনায় প্রায় এক হাজার কোটি টাকা। যদিও বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে সুইস ব্যাংকগুলোতে অর্থ জমার পরিমাণ কমেছে। বৃহস্পতিবার সুইজারল্যান্ডের কেন্দ্রীয় ব্যাংক সুইস ন্যাশনাল ব্যাংকের (এসএনবি) বার্ষিক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে আসে।

ব্যাংকস ইন সুইজারল্যান্ড ২০১৬ শীর্ষক এ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালে সুইস ব্যাংকগুলোতে বাংলাদেশ থেকে জমা হয়েছে ৬৬ কোটি ১০ লাখ সুইস ফ্রাঁ। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ৫ হাজার ৬৮৫ কোটি টাকা। আর ২০১৫ সালে বাংলাদেশ থেকে জমার পরিমাণ ছিল প্রায় ৫৫ কোটি ফ্রাঁ বা প্রায় ৪ হাজার ৭৩০ কোটি টাকা। সেই হিসাবে আগের বছরের চেয়ে জমার পরিমাণ বেড়েছে প্রায় এক হাজার কোটি টাকা বা ২০ শতাংশ।

২০১৬ সালে সুইজারল্যান্ডে মোট ব্যাংকের সংখ্যা ছিল ২৬১টি। এর প্রতিটিতেই বাংলাদেশসহ বিশ্বের সব দেশ থেকে অর্থ জমা রাখা হয়। এসএনবি’র প্রতিবেদনে ২০০৭ সাল থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অর্থ জমার তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। এতে দেখা যায়, ২০০৯ সালের পর থেকে ২০১০ সাল ও ২০১৪ সাল ছাড়া প্রতিটি বছরই এসব ব্যাংকে বাংলাদেশ থেকে টাকা জমার পরিমাণ ধারাবাহিকভাবে বেড়েছে।

২০১৬ সালে এসে বাংলাদেশ থেকে রাখা টাকার পরিমাণ ২০০৯ সালের তুলনায় চার গুণেরও বেশি। ২০০৯ সালে সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশিদের জমার পরিমাণ ছিল ১৪ কোটি ৯০ লাখ সুইস ফ্রাঁ বা এক হাজার ২৮১ কোটি টাকা। যা এখন ৩৪৩ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৫ হাজার ৬৮৫ কোটি টাকা।

এসএনবি’র প্রতিবেদনে দেখা যাচ্ছে, ২০১২ সাল থেকে সুইস ব্যাংকগুলোতে বাংলাদেশ থেকে অর্থ জমার পরিমাণ ধারাবাহিকভাবে বেড়েছে। ২০১২ সালে জমা করা অর্থের পরিমাণ ছিল প্রায় ২২ কোটি ৮০ লাখ ফ্রাঁ, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১ হাজার ৯৬১ কোটি টাকা। ২০১২ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ থেকে জমা রাখা অর্থের পরিমাণও তিন গুণ বেড়ে গেছে। বিপরীতে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের ক্ষেত্রে সুইস ব্যাংকগুলোতে অর্থ জমার পরিমাণ ২০১৬ সালে এসে আগের বছরের চেয়ে প্রায় অর্ধেকে নেমে এসেছে। ২০১৫ সালে ভারতের জমার পরিমাণ ছিল প্রায় ১২১ কোটি সুইস ফ্রাঁ বা প্রায় ১০ হাজার ৪০৬ কোটি টাকা। আর ২০১৬ সালে এসে তাদের জমার পরিমাণ কমে দাঁড়য় ৬৬ কোটি ৪০ লাখ ফ্রাঁ বা প্রায় ৫ হাজার ৭১০ কোটি টাকা।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ৩০.০৬.২০১৭


Comments are closed.