>> নায়করাজ রাজ্জাকের দাফন আজ সকাল ১০টায় >> নারায়নগঞ্জ ৭ খুন মামলায় নূর হোসেন তারেক সাঈদসহ ১৫ জনের মৃত্যুদণ্ডেশ বহাল >> আইন সচিব জহিরুল হকের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ তিন মাস স্থগিত : হাইকোর্ট >> কোথাও কোথাও মাঝারি ধরণের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে >> পাবনায় দুই বাসের সংঘর্ষে ৫ জন নিহত ১৫ জন আহত

গোলানে দ্বিতীয়বার ইসরাইলি হামলা সিরিয়ার সাথে যুদ্ধের প্রস্তুতি?

সম্পাদকীয়ডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Israeli fighterইসরাইল রবিবার সিরিয়ার আল-কুনেইত্রা প্রদেশে গোলান মালভূমিতে সিরিয়ার সেনাবাহিনীর উপর দুইবার বিমান হামলা চালিয়েছ। প্রথম বার সেনা অবস্থানে হামলা চালালে ২ সেনা নিহত হয়। দ্বিতীয়বার সাবেক গভর্ণর ভবন, যা এখন একটি হাসপাতাল, সেখানে হামলা চালায়। দ্বিতীয় হামলার ক্ষয়-ক্ষতির বিস্তারিত বিবরণ পাওয়া যায়নি। প্রথমবার হামলার পর ইসরাইল বলেছিল, সিরিয় গোলান থেকে মর্টারের গোলা এসে ইসরাইল অধিকৃত গোলানে পড়ায় তারা এ হামলা চালিয়েছে। কিন্তু দ্বতীয় দফা হামলা কেন চারিয়েছে, তার কোন ব্যাখ্যা পাওয়া যাযনি।

বস্তুতঃ সিরিয় গোলানে তখন আমেরিকা ও ইসরাইল সমর্থিত কথিত আল-নূসরা ফ্রন্টের (সিরিয়ার আল-কায়েদা) সেনাবাহিনীর সাথে যুদ্ধ চলছিল এবং আল-নূসরা তখন কোণঠাসা হয়ে খুবই বেকায়দা অবস্থায়। মূলতঃ তাদের সাহায্য করার জন্যই ইসরাইল যুদ্ধরত সিরিয় সেনাদের উপর বিমান হামলা চালিয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত গোলানের এ যুদ্ধে আল-কায়েদা পরাজিত হয়েছে, কয়েক কুড়ি নিহত হয়েছে এবং আহত হয়েছে অনেক। আল-নূসরার প্রতি ইসরাইলের সমর্থন সিরিয় বাহিনীর বিজয়কে রুখতে পারে নি।

আপতঃ দৃষ্টিতে সৌদি মার্কিন কোয়ালিশনের গুরুত্বপূর্ণ সহযোগী ইসরাইল আমেরিকার অনুরোধেই সিরিয় বাহিনীর উপর হামলা চালিয়ে যাচ্ছে, কারণ বর্তমানে মার্কিন-সৌদি-ইসরাইল সমর্থিত দায়েশ, আল-নূসরা এবং ফ্রি সিরিয়ান আর্মি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলো সিরিয় গৃহযুদ্ধে চুড়ান্ত পরাজয় বরণ করতে চলেছে। সিরিয় বাহিনীকে দুর্বল করে এসব সন্ত্রাসী গ্রুপগুলোকে বাঁচিয়ে রেখে সিরিয়ার অত্যন্তরীণ অস্থিতিশীলতা বজায় রাখতে চেষ্টা করছে আমেরিকা ও ইসরাইল। সে কারণে কিছু দিন হ’ল আমেরিকাও সিরিয় বাহিনীর উপর সরাসরি হামলা শুরু করেছে এবং সিরিয়া জর্দান সীমান্তে দূরপাল্লার হাই পারফরম্যান্স মাল্টিপল রকেট লাঞ্চার মোতায়েন করেছে।

কিন্তু মধ্যপ্রচ্যের সামরিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, তলে তলে ইসরাইলের ভিন্ন উদ্দেশ্য রয়েছে। তারা যে কোন ছুতায় সিরিয়ার সাথে নতুন করে যুদ্ধ বাঁধিয়ে গোলান মালভূমি পুরোটাই দখল করে নিতে চায়। পরলে সাথে আরও কিছু এলাকা নিতে চায়। এমনিতে ইসরাইল গত কয়েক বছর ধরে অধিকৃত গোলান মালভূমিকে ইসরাইলের অংশ হিসেবে স্বীকৃতি প্রদানের জন্য জাতিসংঘ, আমেরিকা ও ইউরোপের কাছে ধর্ণা দিচ্ছে।

ইসরাইলের এই দুরভিসন্ধি বাস্তবায়নে আমেরিকা সমর্থন দেবে সেটা অবধারিত। কিন্তু রাশিয়া সেটা ভাল চোখে দেখবে না, ভালভাবে নিবে না। তুরস্কের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক থাকার পরও নতুন করে বিরোধ সৃষ্টি হতে পারে এবং সে বিরোধ সংঘাতের পর্যায়ে চলে যেতে পারে। এদিকে, ইসরাইল সিরিয়া আক্রমণ করলে ইরান, হিজবুল্লাহ এবং হামাস সিরিয়ার পক্ষে যুদ্ধে যোগ দিতে পারে। সে ক্ষেত্রে এ যুদ্ধ আর সিরিয়া -ইসরাইলের মধ্যে সীমিত থাকবে না, বরং একটি ভয়াবহ আঞ্চলিক যুদ্ধে রূপ নিতে পারে। তারপরও পারমানবিক অস্ত্র হাতে থাকায় ইসরাইল ঝুঁকি নিতে চায়। কিন্তু সমস্যা হ’ল চীন এবং ইউরোপ। এ জন্য একটি যুদ্ধ শুরু করার আগে মাঝে মাঝে ছোট ছোট হামলা চালিয়ে চীন ও ইউরোপের মনোভাব বুঝতে চেষ্টা করছে ইসলাইল।

আমেরিকার ইনষ্টিটিউট ফর হিষ্টোরিক্যাল রিভিউ’র পরিচালক মার্ক ওয়েবারও সম্প্রতি ইরানের প্রেস টিভিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, গোলান মালভূমিতে মাঝে মধ্যে হামলা চালিয়ে ইসরাইল সিরিয়ার ওপর পূর্ণাঙ্গ আগ্রাসনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। তিনি বলেন, সিরিয়ার অবস্থানে বর্তমান এ হামলা ততটা গুরুত্বপূর্ণ নয়, তবে তারা ভবিষ্যতে অনেক বড় হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

মার্ক ওয়েবার বলেন, ইসরাইল এ ধরনের ছোটখাট হামলার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক সমাজের মনোভাব বুঝতে চায় যে, মধ্যপ্রাচ্যে এ ধরনের যুদ্ধ ছড়িয়ে দেয়ার বিষয়টিকে তারা কী ভাবে নেয়। এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হ’ল ইউরোপের মতামত এবং অবস্থান; তারা যদি ইসরাইল ও আমেরিকার রাশ টেনে না ধরে তাহলে ইসরাইল অনেক বড় ধ্বংসাত্মক সামরিক হামলা চালিয়ে বসতে পারে।

বাংলাদেশনিউজ
২৬.০৬.২০১৭


Comments are closed.