>> জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ ৩০ ডিসেম্বর : শিক্ষামন্ত্রী >> ইয়েমেনের রাজধানী সানায় আবার সৌদি বিমান হামলা নিহত ৩ >> হবিগঞ্জে ট্রাক-পিকআপ সংঘর্ষে ২ জন নিহত

ভাষার অন্তর্ঘাত রুখে দাঁড়ানো উচিৎ

সম্পাদকীয়ডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Logo-Illustrator-editorial-Color-1বাংলা ভাষা বিশ্বের সমৃদ্ধ ভাষাগুলির মধ্যে একটি। রবীন্দ্রনাথ ১৯১৩ সালে নোবেল পুরস্কার পাওয়ার আগেই বাংলা ভাষা একটি মর্যদার আসনে ছিল। তবে রবীন্দ্রনাথের নোবেল প্রাপ্তি পরিচিতির গণ্ডীটা সাধারণের পর্যায় পর্যন্ত সম্প্রসারিত করেছিল। ক্রমে ক্রমে রবীন্দ্র সাহিত্য ছাড়াও আরও অনেকের সাহিত্য কর্ম বিদেশী ভাষায় অনুদিত হয়েছিল, এখনও হচ্ছে। কিন্তু বাংলা ভাষার সেই মর্যাদার আসনটি বোধ হয় থাকছে না, থাকবে না।

বাংলা ভাষার বর্ণ প্রকরণ এবং সেই সব বর্ণের ব্যবহারে উচ্চারণ ও বাচনভঙ্গীর যে বহুমাত্রিক বৈশিষ্ট ও মাধুর্য, সেটাই বাংলা ভাষার প্রাণ। এখন সেই বহুমাত্রিক বৈশিষ্ট ও মাধুর্য বর্জনের একটি সক্রিয় প্রচেষ্টা পরিলক্ষিত হচ্ছে, যেটা হয়তো আত্মঘাতী কিংবা অন্তর্ঘাতমূলক। এ পথেই বাংলা ভাষার চুড়ান্ত সর্বনাশটা ঘটার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

প্রথমতঃ কথিত প্রমিত বংলা প্রচলন করে বাংলা ভাষার আধুনিকীকরণের নামে ষাট ভাগের মত “আনন্দবাজারীকরণ” সম্পন্ন হয়েছে। বাংলা একাডেমীর ফতোয়া ছাড়াই বাংলা ভাষার বানান রীতিতে ব্যাপক অগ্রহণযোগ্য পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। তারপর, এখন বালা একাডেমী যা শুরু করেছে, তাতে চুড়ান্ত “আনন্দবাজারীকরণ”, চুড়ান্ত সর্বনাশটা, হতে বোধ করি আর বেশী দিন লাগবে না। বাংলা ভাষা মরে যাবে না, বিলুপ্তও হবে না। তবে, যা থাকবে তা জীবনান্দ দাশ নয়, বড় জোর তাঁর ছেঁড়া স্যান্ডেলটা হয়তো থাকবে।

যে কোন ভাষার পরিবর্তন, সংস্কার, আধুনিকীকরণ ভাষাকে সমৃদ্ধ করে, ভাষার মর্যাদা ক্ষুণ্ণ করে সেটা হতে পারে না। তার চেয়েও বড় কথা সবই হতে হবে ভাষার মূল কাঠামোর উপরে দাঁড়িয়ে। বাংলা ভাষার আধুনিকীকরণের নামে অন্তর্ঘাতেঁর এ প্রবণতা রুখে দাঁড়ানো উচিৎ।

বাংলাদেশনিউজ
২৪.০৬.২০১৭


Comments are closed.