>> ইরাক ও সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত আরও ৬১

সেই কার্ডিফেই আরেকটি অবিস্মরণীয় জয়

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

BD Champions trophy vs NZসালটা ২০০৫! মাঠটা ছিল কার্ডিফ! ওয়েলস এর এই কার্ডিফেই তখনকার দুর্জেয় দল অষ্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে দিয়েছিল টাইগার্স বাহিনী! ঠিক একযুগ পরে আবার সেই কার্ডিফ! আবার ক্রিকেটের এক মহাকাব্য লিখল টাইগররা। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে আরও উজ্জ্বল হ’ল দুই নক্ষত্র, সাকিব ও মাহমুদুল্লাহ’র নাম।

এদিন ‘হারলেই বিদায়’, এমন সমীকরণ নিয়ে খেলতে নেমেছিল বাংলাদেশ ও নিউজিল্যাণ্ড। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা নিউজিল্যান্ডকে ২৬৫ রানের বেঁধে ফেলেছিল টাইগাররা। টস হেরে ফিল্ডিংয়ে নেমে দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়েছিল বাংলাদেশের বোলাররা। রস টেলর ও কেইন উইলিয়ামসন নিউজিল্যান্ডকে বড় সংগ্রহের স্বপ্ন দেখালেও ইনিংসের শেষপর্যায়ে দারুণ বোলিং করেছেন রুবেল- মাশরাফি-সৈকতরা। নিউজিল্যান্ডকে আটকে দিয়েছেন ২৬৫ রানে। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৩ রানের ইনিংস খেলেন টেলর। অধিনায়ক উইলিয়ামসনের ব্যাট থেকে এসেছে ৫৭ রান। ৩৬ ও ৩৩ রানের ছোট দুটি ইনিংস খেলেছেন নেইল ব্রুম ও ওপেনার মার্টিন গাপটিল। মাত্র ১৩ রানের বিনিময়ে তিন উইকেট নেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা তাসকিন আহমেদ নেন দুই উইকেট। একটি করে উইকেট নেন মুস্তাফিজ ও রুবেল।

কিন্তু ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের শুরুটা হয়েছিল চরম দুঃস্বপ্নের মধ্য দিয়ে! ৩৩ রানেই সাজঘরে ফিরে গিয়েছিলেন প্রথম সারির চার ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান ও মুশফিকুর রহিম। বাংলাদেশের জয়ের আশা হয়তো ছেড়েই দিয়েছিলেন অনেকে। কিন্তু তখনও কারও ধারনাই ছিল না যে, অসাধারণ এক ক্রিকেট মহাকাব্য লিখবেন সাকিব আল হাসান ও মাহমুদউল্লাহ।

BD Mahmudullah and Shakibমনের মাঝে পরাজয় উঁকি দিচ্ছে, এমন চাপের বোঝা মাথায় নিয়ে খেলতে নেমে অভিজ্ঞ দুই ব্যাটসম্যান দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে লিখে ফেললেন বাংলাদেশের ক্রিকেটরেএক অমর মহাকাব্য!। পঞ্চম উইকেটে গড়লেন ২২৪ রানের রেকর্ড জুটি। বাংলাদেশের পক্ষে যে কোনো উইকেটে এটাই এ যাবতকালের সর্বোচ্চ রানের জুটি। ৪৭তম ওভারে ১১৫ বলে ১১৪ রান করে সাকিব যখন সাজঘরে ফিরেছেন, তখন জয়ের জন্য বাংলাদেশের প্রয়োজন মাত্র ৯ রান এবং মাহমুদুল্লাহ’র শতক পুরতে ২ রান বাকি। বাকি কাজটুকু অনায়াসেই সেরেছেন মাহমুদউল্লাহ ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। মাহমুদউল্লাহ খেললেন ১০৭ বলে ১০২ রানের অবিস্মরণীয় ইনিংস। ১৬ বল হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ।

ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই টিম সাউদি শুণ্য রপানে সাজঘরে ফিরিয়েছিলেন দারুণ ফর্মে থাকা তামিম ইকবালকে। নিজের পরের ওভারে সাউদি আউট করেন সাব্বির রহমানকে। আর তার পরের ওভারে সাউদির শিকার হন সৌম্য। তিনজনের কেউই পেরোতে পারেননি দুই অঙ্কের কোটা। দ্বাদশ ওভারে ১৪ রান করে মুশফিকও ধরেন সাজঘরের পথ। অ্যাডাম মিলনের দারুণ এক ডেলিভারিতে বোল্ড হয়ে ফিরে যান বাংলাদেশের অন্যতম ব্যাটিং ভরসা।

আজকের এই হারের ফলে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়ে গেল নিউজিল্যান্ডের। আর বাংলাদেশের আশা টিকে থাকল বেশ ভালোমতোই। আগামীকাল শনিবার অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের ম্যাচে ইংল্যান্ড জিতলে বা ম্যাচটি পরিত্যক্ত হলে সেমিফাইনালে চলে যাবে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ একাদশ
তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, সাব্বির রহমান, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, মাশরাফি বিন মুর্তজা, তাসকিন আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন।

নিউ জিল্যান্ড একাদশ
কেন উইলিয়ামসন, কোরি অ্যান্ডারসন, ট্রেন্ট বোল্ট, নিল ব্রুম, মার্টিন গাপটিল, অ্যাডাম মিল্ন, জিমি নিশাম, লুক রনকি, মিচেল স্যান্টনার, টিম সাউদি, রস টেইলর।

ম্যান অফ দ্য ম্যাচঃ সাকিব আল হাসান।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ১০.০৬.২০১৭


Comments are closed.