>> দেশের কোথাও কোথাও মাঝারী ধরনের ভারী বর্ষণ হতে পারে >> মার্কিন বিমান হামলায় সিরিয়ায় আবার ২৮ বেসামরিক নাগরিক নিহত >> ঈদের পরদিন ইয়েমেনে আবার সৌদি বিমান হামলায় নিহত ১০ >> খাগড়াছড়িতে বাস উল্টে মা ও শিশুসহ নিহত ৩ আহত ১৩ >> গোপালগঞ্জে পিক-আপ উল্টে নিহত ১ আহত ৮

আবার সংসার পাততে চলেছেন তারা?

বিনোদনডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Hrithik Suzanne 2প্রায় তিন বছর হয়ে গেল তাদেরর বিবাহ বিচ্ছেদ হয়েছে। কিন্তু ভক্তদের কাছে তাঁদের বিচ্ছেদ নয়, ১৩ বছরের সম্পর্কের অনুরণনটা এখনও কানে বাজে। বিচ্ছেদের কতাটা মনেই আসে না। মনে হয় দে আর ষ্টিল ইন লভ! তা না হলে বিচ্ছেদের অফিশিয়াল ষ্টেটমেন্ট দেওয়ার পর থেকে আজ পর্যন্ত তাঁদের পাবলিক অ্যাপিয়ারেন্স এমন ভাবে কেন হবে, যাতে মনে হয় তাঁরা এখনও দম্পতি?

বিচ্ছেদ পরবর্তী ঘটনাগুলো খতিয়ে দেখলেই বোঝা যাবে যে, এই ধারণাটা মোটেই গুজব নয়। এখন তারা নতুন করে একসঙ্গে সংসার শুরু করতে চলেছেন, এমন খবর চারদিকে গম গম করছে! বুঝা যায় এ খবরের পিছনে তাদেরও পুরোপুরি ইন্ধন আছে।

২০১৪ সালে অফিশিয়াল ডিভোর্স হওয়ার পর হৃতিক এবং সুজানকে প্রথমবার একসঙ্গে দেখা যায় ছোটছেলে হৃদানের জন্মদিনে। তার পর থেকে নিয়মিত একসঙ্গে রেস্তোরাঁয় খেতে যাওয়া, হৃতিকের জন্মদিনের পার্টি, সিনেমা দেখা, সমুদ্রতটে ভ্যাকেশন… সব জায়গায় হম দো, হমারে দো।

শুধু তাই নয়, নিজের বাড়ির কাছে সুজানের জন্য ফ্ল্যাট কিনে দিয়েছেন, যাতে রেহান আর হৃদানকে নিয়ে তাঁদের মা সেখানে থাকতে পারেন। হৃতিকের চোখের সামনে।

সুজানও কিছু কম যান না। কঙ্গনা রানাওয়াতের সঙ্গে হৃতিকের সম্পর্কের পোষ্টমর্টেম করতে যখন পুরো ফিল্ম দুনিয়া ব্যস্ত, সে সময় সুজান পারতেন, হৃতিককে দোষী করে নিজের দিকে সিমপ্যাথি ক্রিটে করতে। কিন্তু তিনি পুরো উল্টো পথে হেঁটেছেন। এক্স হাজব্যান্ডের পাশে পিলারের মতো দাঁড়িয়ে থেকেছেন এবং তাঁর সঙ্গে হৃতিকের ছবিকে কী ভাবে কঙ্গনার ছবি দিয়ে মর্ফ করা হয়েছে, তার অকাট্য প্রমাণ সোশ্যাল মিডিয়ায় রেখেছিলেন। তার পর ‘কাবিল’-এ হৃতিকের অভিনয়ের প্রশংসা করতে গিয়ে তো বিশেষণে ভরিয়ে দিয়েছিলেন। এ সবের সঙ্গে দুই ছেলেকে নিয়ে দুবাইয়ে ছুটি কাটাতে যাওয়া, রেস্তোরাঁয় খাওয়া, ‘সচিন: আ বিলিয়ন ড্রিমস’এর প্রিমিয়ারে… মাঝেমাঝেই চোখে পড়েছে।

আরও একটা ব্যাপার সকলের নজর কেড়েছে, তা হল হৃতিকের পরিবারের সঙ্গে সুজানের নতুন করে সখ্য। এই তারকা দম্পতির বিচ্ছেদের অন্যতম কারণ ছিল শ্বশুরবাড়ির সঙ্গে বউমার বনিবনা না হওয়া। একসঙ্গে ফ্যামিলি ডিনার, হৃতিকের জন্মদিন পালন, মনে হয়েছে সুজান যেন পরিবারেরই একজন। ডিভোর্স একটা দুঃস্বপ্ন ছিল। সকাল হতেই তা কেটে গিয়েছে।

তাঁদের একসঙ্গে মিলিত হওয়া প্রসঙ্গে সুজানকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেছিলেন, ‘‘আমরা পরস্পরের খুব ক্লোজ। সব কিছুর উপরে রয়েছে আমাদের দুই ছেলে। যখন কোনও ব্যাপারের সঙ্গে আমাদের বাচ্চারা জড়িত, তখন আমরা সব মতান্তর সরিয়ে রেখে, ওদের পাশে দাঁড়াই।’’

হৃতিক ও সুজানের আবার নতুন করে কাছাকাছি আসার এটাই হল আসল কারণ। তাঁদের সন্তান। বাবা-মায়ের বিচ্ছেদ রেহান ও হৃদানের কিশোর মনে এতটাই ছাপ ফেলেছে যে, বন্ধুবান্ধব, মেলামেশা সব কিছু থেকে তারা নিজেদের সরিয়ে নিয়েছে। এমনকী, তাদের পড়াশোনাতেও ভীষণভাবে তার ছাপ পড়েছে। এমন পরিস্থিতিতে আর পাঁচজন দায়িত্ববান বাবা-মা যা করেন, হৃতিক এবং সুজানও তা করেছেন। শুধু নিজেদের কথা না ভেবে দুটো নিষ্পাপ কিশোর মন যেন বাবা-মায়ের সাহচর্যে সুস্থ একটা ভবিষ্যৎ পায়, তার চেষ্টা।

সবার প্রার্থনা সেটাই, দুই ছেলের কথা ভেবেই যেন হৃতিক এবং সুজান আবার ভেঙে যাওয়া সম্পর্ক জোড়া দেন এবং একটি নতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন সকলের জন্য।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ০১.০৬.২০১৭


Comments are closed.