>> কুমিল্লা বিক্টোরিয়ান্সকে হারিয়ে রংপুর রাইডার্স বিপিএল ফাইনালে >> হবিগঞ্জে ৫ জেএমবি সদস্য আটক

রাশিয়ার সর্বাধুনিক হোলিকপ্টার কেএ-৬২ আকাশে উড়ল

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

# ছবি তাস

# ছবি তাস

রাশিয়ার সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সমৃদ্ধ কামভ কেএ-৬২ হেলিকপ্টারের প্রথম পরীক্ষামূলক মডেলটি বৃহস্পতিবার সফলভাবে প্রথমবার আকাশে উড়ল। এ হেলিকপ্টারটি প্রধানতঃ বেসামরিক কাজে ব্যবহপারের উপযোগী করে তৈরী করা হয়েছে। খবর তাস ও স্পূতনিকের।

হেলিকপ্টারটি আর্সেনিয়েভ এভিয়েশন কোম্পানীর “প্রগতি” উড্ডয়ন ক্ষেত্র থেকে আকাশে উঠে এবং এ ক্ষেত্রের উপর দিয়ে উড়তে থাকে। এ ক্ষেত্রটি “রাশিয়া হেলিকপ্টার গ্রুপ” এরই অংশ।

উড্ডয়নের সময় টেষ্ট পাইলট কেএ-৬২ হেলিকপ্টারের সার্বিক পারফরম্যান্স মূল্যায়ন করেন এবং এর পাওয়ার সাপ্লাই সিষ্টেম, সংযোযিত যন্ত্রপাতি এবং ইঞ্জিনের কার্যক্ষমতা ও সক্ষমতা যাচাই করেন। এছাড়া হেলিকপ্টারটির নির্ভরশীলতা এবং নিয়ন্ত্রণযোগ্যতাও যাচাই করা হয়। পরীক্ষামূলক উড্ডয়নকালে হেলিকপ্টারটি ১১০ কিলোমিটার পর্যন্ত গতিতে চলেছে।

রাশিয়ান হেলিকপ্টারের জেনারেল ডিরেক্টর আন্দ্রেই বোজিনস্কি বলেন, আগের পরীক্ষাগুলোর পর এবং আগের মডেল গুলো থেকে আরও উন্নত যে সমস্ত পরিবর্তন ও উন্নয়ন ঘটানো হয়েছে তার উপকারিতা ও ব্যবহারিক স্বাচ্ছন্দ্য উপলব্ধির জন্যই আজকের পরীক্ষামূলক উড্ডয়ন অঅয়োজন করা হয়েছে।

এ হেলিক্প্টারটির প্রধান কাজ হবে যাত্রি পরিবহণ, জরুরী স্বাস্থ্যসেবা সহায়তা প্রদান, উপকূলীয় এলাকায় বিভিন্ন দায়িত্ব পালন, অনুসন্ধান ও উদ্ধার তৎপরতা চালানো, মালামাল পরিবহণ, নিরাপত্তা টহল এবং পরিবেশগত পর্যবেক্ষণ ও মনিটরিং। এছাড়া হেলিকপ্টারটি পার্বত্য এলাকায় অনুসন্ধান, উদ্ধার ও স্থানান্তরকরণ (evacuation) তৎপরতা চালাতেও সক্ষম।

# প্রটোটাইপ /ওয়েব সাইট

# প্রটোটাইপ /ওয়েব সাইট

হেলেকপ্টারটি সর্বোচ্চ ৬,৫০০ কেজি বা সাড়ে ছয় টন ভার বহণ করতে পারে। পরিবহণ কেবিন ছাড়াও বাইরের পরিবহণ ব্যবস্থায়ও (Sling, attached means for carrying) মালামাল বহণ করতে পারে। হেলিকপ্টারটিতে সীট সংযোজন পরিকল্পনার ভিত্তিতে ১২ থেকে ১৫ জন যাত্রি পরিবহণ করা যাবে।

কেএ-৬২ হেলিকপ্টারের সর্বোচ্চ গতি ঘন্টায় ৩০৮ কিলোমিটার, তবে সাধারণ ক্রুজ স্পীড ঘন্টায় ২৯০ কিলোমিটার। প্রধান ট্যাংকের জ্বালানীতে ৭৭০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে পারে। সর্বোচ্চ ৫,৭০০ মিটার উচ্চতায় উড়তে পারে।

হেলিকপ্টারটি দু’টি আর্ডিডেন ৩জি ১,৬৮০ অশ্বশক্তির টার্বোমেকা ইঞ্জিন দ্বারা চালিত। এটি সর্বনিম্ন -৫০ ডিগ্রি এবং সর্বোচ্চ +৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় চলতে সক্ষম। কেএ-৬২ হেলিকপ্টারের -৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় চলতেও বাড়তি হিটিং এর প্রয়োজন হয় না। তাছাড়া একটি নিয়মিত বিমানবন্দর, তেলের টার্মিনাল, রিগ প্লাটফর্ম এবং যে কোন অপ্রস্তুতকৃত প্রাকৃতিক ভূমিতে উঠানামা করতে পারে।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ২৬.০৫.২০১৭


Comments are closed.