>> ইরাক ও সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত আরও ৬১

এভারেস্ট শৃঙ্গের ‘হিলারি স্টেপ’ উধাও!

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Everestআগে থেকেই আশঙ্কা ছিল। সেটাই সত্যি হল। এই মওসুমে এভারেস্ট শৃঙ্গজয় শুরু হওয়ার পরেই অভিযাত্রীরা খবর দিলেন, ভেঙে গিয়েছে এভারেস্ট শৃঙ্গের অন্যতম বৈশিষ্ট্য, ‘হিলারি স্টেপ’।

২০১৫ সালের ভয়াবহ ভূমিকম্পের পর থেকেই পর্বতারোহী মহল আশঙ্কা করছিলেন, বিশ্বের সর্বোচ্চ এই শৃঙ্গে ওঠার রাস্তাটি আর আগের মতো থাকবে না, বদলে যেতে পারে। ঠিক যেমন বেস ক্যাম্প থেকে ক্যাম্প ওয়ানে যাওয়ার পথে যে খুম্বু বরফপাত হয়, সেখানে অনেক বেড়ে গিয়েছে ক্রিভাস অর্থাৎ বরফের গায়ে ফাটলের সংখ্যা। ভূমিকম্পের আগে এভারেস্ট শৃঙ্গ থেকে খানিকটা নীচে, শৃঙ্গের দক্ষিণ-পূর্ব গা ঘেঁষে ১২ মিটারের একটি বড় পাথুরে অংশ পাহাড়ের গা থেকে বেরিয়ে ছিল। ওই অংশটি পেরোনো বেশ কঠিন ছিল পর্বতারোহীদের পক্ষে। ১৯৫৩ সালে স্যর এডমন্ড হিলারি প্রথম ওই অংশটি সফল ভাবে পেরোন এবং এভারেস্ট শৃঙ্গে পা রাখেন। তার পর থেকেই ওই অংশটির নাম হয় ‘হিলারি স্টেপ’। সকল পর্বতারোহীদের স্বপ্নের পদক্ষেপ, যা পার করতে পারলেই ছোঁয়া যায় এভারেস্ট!

এ বছর ১৬ মে প্রথম শৃঙ্গে উঠা শুরু হয় এভারেস্টে। প্রথম অভিযাত্রী দলের দলনেতা টিম মোসডেল নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, হিলারি স্টেপ আর নেই। সেই সঙ্গে এটাও জানিয়েছেন যে, ভেঙে যাওয়া ওই পথ এ বার আরও কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে অভিযাত্রীদের জন্য। তাঁর কথায়, ‘‘আগে বেরিয়ে থাকা অংশের পাশ দিয়ে রুট তৈরি করে দিতেন শেরপারা। এখন যা ভাঙাচোরা অবস্থা, তাতে অভিযাত্রীদের এগোনোর পথ তৈরি করতে শেরপাদের রীতিমতো বেগ পেতে হচ্ছে।’’ অভিযাত্রীদের আশা, কিছু দিনের চেষ্টায় দক্ষ শেরপারা হয়তো এর সমাধান করে ফেলবেন। ভাঙাচোরা অংশের মধ্যে দিয়েই এমন কোনও পথ তৈরি হবে, যা হিলারি স্টেপের চেয়ে সহজ। সর্বোপরি, প্রতি বছর হিলারি স্টেপ পেরোনোর দীর্ঘ অপেক্ষায় যে ‘ট্রাফিক জ্যাম’ হ’ত, তা হয়তো এড়ানো যাবে। জ্যামের কারণে প্রতি বছরই কয়েক ঘণ্টা সময় নষ্ট হওয়ায় আটকে যায় শৃঙ্গে উঠার অনেক অভিযান। ঠান্ডায় ফ্রস্ট বাইটের শিকার হতে হয় অনেককে, ফুরিয়ে যায় অক্সিজেন।

অভিযাত্রীদের সূত্রে খবর, ২০১৫ সালের ভূমিকম্পেই এই হিলারি স্টেপের যা ক্ষতি হওয়ার হয়েছিল। গত বছর, অর্থাৎ ২০১৬ সালে ওই অংশে এতটাই বরফ জমে ছিল যে, ভাল করে বোঝা যায়নি হিলারি স্টেপের অস্তিত্ব। এ বছর পরিষ্কার হয়ে গেল, হিলারি স্টেপ আর নেই।

-সংগৃহীত

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ২৩.০৫.২০১৭


Comments are closed.