>> দেশের বিভিন্ন স্থানে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে >> রংপুর পীরগঞ্জে ট্রাক উল্টে ঈদে ঘরমূখী ১৭ জন নিহত >> চীনের সিচুয়ান প্রদেশে জিনমো গ্রামে ভূমি ধ্বসে ১০০ মানুষ নিঁখোজ >> পাকিস্তানের পারাচিনারে সন্ত্রাসী হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫৭ >> টাঙ্গাইলে বাস-ট্রাকের মুখোমুখী সংঘর্ষে ৪ জন নিহত

বিশ্বের বৃহত্তম উভচর বিমান তৈরী করল চীন

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

China AG 600উভচর বিমান বহু আগেই তৈরী হয়েছে যা “সী প্লেন” নামে পরিচিত। তবে সেগুলি বেশ ছোট। ক্রমে ক্রমে আকারে বড় উভচর বিমানও তৈরী হয়েছে। প্রধানতঃ সামরিক ও ত্রাণ তৎপরতার কাজে ব্যবহারের জন্য। তবে, সম্প্রতি চীন এজি৬০০ নামে বিশ্বের সর্ববৃহৎ উভচর বিমান তৈরী করেছে।

এ বিমানের প্রথম প্রটোটাইপ তৈরী হয় ২০১৫ সালে। প্রকৃত বিমান তৈরী হয় চীনের গুয়ানডং প্রদেশে ২০১৬ সালের জুলাই মাসে। আর বিমানটির প্রথম উড্ডয়ণ হ’ল এ বছর অর্থাৎ ২০১৭ সালের ২৯ এপ্রিল শনিবার চীনের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর জুহাইতে। বিমানটি আকারে বোয়িং ৭৩৭ এর সমান। সর্বোচ্চ পাল্লা ৪,৫০০ কিলোমিটার। এটি ১০,৫০০ মিটার বা ৩৪,৪০০ ফুট পর্যন্ত উচ্চতায় উড়তে পারে। প্রতি ঘন্টায় এর গতিবেগ ৫৭০ কিলোমিটার বা ৩৫৪ মাইল।

এজি৬০০ বিমানটি লম্বায় প্রায় ৩৭ মিটার ব ১২১ ফুট, পাখার বিস্তৃতি প্রায় ৩৯ মিটার বা ১২৭ ফুট এবং উচ্চতা ১২ মিটার বা ৪০ ফুট। বিমানটির সর্বোচ্চ উড্ডয়ণ ওজন ৫৩,৫ মেট্রিক টন(৫৩,৫০০ কেজি বা ১১৭, ৯৪৭ পাউণ্ড)। বিমানটি ৪টি টার্বো-প্রপেলার ইঞ্জিনের সাহায্যে চলে।

চীনা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে বিমানটি দাবানল বা বনভূমির আগুণ নেভানো এবং সমূদ্রে উদ্ধার তৎপরতার কাজে ব্যবহার করা হবে। আকাশ থেকে আগুণ নেভানোর জন্য এ বিমানে একবার ১২ টন পানি বহণ করা ও ফেলা যাবে। উদ্ধার কাজে বিমানটি ৫০ জন মানুষ বহণ করতে পারবে।

China AG 600 Amphibiousসামরিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিমানটি কৌশলগত সামরিক কাজেও ব্যবহার করা যাবে। বিশেষ করে দক্ষিন চীন সাগরে চীনের কর্মতৎপরতায় এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

অবশ্য চীনের কিছু ভাষ্যকার এরই মধ্যে বলেছেন, বিমানটি বিশেষভাবে ডিজাইন করে তৈরী করা হয়েছে দক্ষিন চীন সাগরে চীনের স্বার্থ রক্ষার কাজে ব্যবহারের জন্য।

ইতোমধ্যে এ বিমান রপ্তানীর জন্য আন্তর্জাতিক বাজারে দ্বীপ রাষ্ট্রগুলির মধ্যে চাহিদা সৃষ্টি হয়েছে। নিউজিল্যাণ্ড ও মালয়েশিয়া ইতোমধ্যে এই বিমান ক্রয়ের আগ্রহের কথা জানিয়েছে।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ০১.০৫.২০১৭


Comments are closed.