>> পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশে তেল ট্যাংকার বিস্ফোরণে ১২৩ জন নিহত

কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য জনসচেতনতার বিকল্প নেই

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Mujibul-Haqueশ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো: মজিবুল হক বলেছেন,কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য জনসচেতনতার বিকল্প নেই।

সরকার অগ্রাধিকার ভিত্তিতে গার্মেন্টস সেক্টরে কাজ করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশে কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা পরিস্থিতির অগ্রগতি হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে আন্তর্জাতিক পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা দিবস উপলক্ষে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি এবং ওশি-এর আয়োজনে ‘বাংলাদেশে কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা : অর্জন, চ্যালেঞ্জ ও করণীয়’ শীর্ষক সামাজিক সংলাপে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি‘র চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ। এ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ওশির চেয়ারপার্সন রিজওয়ানা সাকী, নির্বাহী পরিচালক এ আর চৌধুরী, আইএলও এর আলবার্টো সার্ডা, ফায়ার ব্রিগেড-এর প্রাক্তন মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল অব: আবু নাইম মো: শহিদুল্লাহ, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. রওশন মমতাজ ও ড. ইশতিয়াক আহমেদ।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২০০৬ এবং ২০১৩ সালে শ্রম আইন সংশোধন করা হয়েছে। সচেতনতার অভাবে এসব আইনের বাস্তবায়ন হচ্ছে না। শিশুশ্রম বিষয়ে সুস্পষ্ট আইন থাকা স্বত্ত্বেও গৃহকর্মে শিশুদের নিয়োগ করা হচ্ছে। তাই জনসচেতনতা জরুরী। প্রতিমন্ত্রী বলেন, ৮৩ লাখ ইনস্পেকশন ইউনিট পরিদর্শন করতে ২০ হাজার পরিদর্শক লাগবে যা সময় সাপেক্ষ। তাই সচেতনতার বিকল্প নেই।

তিনি কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে আয়োজিত সামাজিক সংলাপের উদাহরণ টেনে বলেন, এ ধরনের সামাজিক সংলাপ কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা পরিস্থিতি উন্নয়নে সহযোগিতা করবে।

তিনি আরো বলেন, রানা প্লাজা থেকে শিক্ষা গ্রহণ করে পরিদর্শন কর্মসূচীকে শক্তিশালী করা হয়েছে এবং পরিদর্শকের সংখ্যাও বৃদ্ধি করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপট বিবেচনায় সরকার যথাযথভাবে শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণ প্রদানে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ২৭.০৪.২০১৭


Comments are closed.