>> সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে হাওড়ের মানুষের পাশে দাঁড়াতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ >> সুনামগঞ্জের পাকনা হাওড়ের বাঁধ ভেঙে কয়েক হাজার হেক্টর জমির ধান তলিয়ে গেছে >> দেশের অভ্যন্তরীণ নদী-বন্দরসমূহের জন্য ২ নম্বর নৌ-হুঁশিয়ারি সংকেত >> ভারতের ঝাড়খন্ডে বাস দুর্ঘটনায় নিহত ৮ আহত ৫৫

কোপা দেল রের শেষ আটে বার্সা

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Barcelona-v-Athletic-Bilbaoঅনেক দিন পর ফিরলেন সেই চিরচেনা মেসি। সেই সঙ্গে সুয়ারেজ ও নেইমারও রুদ্রমূর্তি ধারণ করলেন। আর এই ত্রিমূর্তির গোলেই কোপা দেল রের শেষ ৮ নিশ্চিত করেছে বার্সেলোনা। কোপা ডেল রের শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগে অ্যাথলেটিকো বিলবাওকে ৩-১ গোলে হারিয়ে প্রতিযোগিতার কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে গেল বার্সা।

প্রথম লেগে ২-১ গোলে পিছিয়ে থাকায় শেষ আটে উঠতে জিততেই হতো বার্সেলোনার, গোলের সমীকরণটাও রাখতে হতো পক্ষে। নিজেদের মাঠে শুরু থেকেই আক্রমণে ওঠে মেসি-নেইমাররা। শুরুতে অতিথিদের জমাট রক্ষণে খুব একটা সুবিধা করতে পারছিল না তারা।

তিন দিন আগে লিগে ভিয়ারিয়ালের মাঠে রেফারির বিতর্কিত সিদ্ধান্তে পয়েন্ট হারাতে হয়েছিল বার্সেলোনাকে। বুধবার রাতেও রেফারির ভুল সিদ্ধান্ত তাদের বিপক্ষে যায়। ২৭তম মিনিটে নেইমারের বাড়ানো বল ধরে জালে পাঠিয়েছিলেন সুয়ারেস; কিন্তু অফসাইডের কারণে গোল হয়নি। ব্রাজিলিয়ান তারকার বিরুদ্ধে অফসাইডের পতাকা উঠলেও টিভি রিপ্লেতে পরিষ্কার দেখা যায়, অনসাইডে ছিলেন তিনি।

৩৫তম মিনিটে বার্সেলোনার এগিয়ে যাওয়া গোলের উৎস মেসি, মাঝমাঠের কাছে এক জনকে কাটিয়ে বাঁ-দিকে পাস দেন তিনি। বল ধরে কিছুটা এগিয়ে ডান দিকে দারুণ এক ক্রস দেন নেইমার আর অসাধারণ এক কোনাকুনি ভলিতে কাম্প নউকে উল্লাসে ভাসান সুয়ারেস।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান দ্বিগুণ করে ফেলে বার্সেলোনা। বাঁ-দিকের বাইলাইনের কাছ থেকে ক্ষিপ্র গতিতে ডি-বক্সে ঢুকে পড়া নেইমারকে স্প্যানিশ ডিফেন্ডার বোভেদা ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। স্পটকিকে নিজেই বল জালে পাঠিয়ে প্রায় তিন মাস পর গোল করার আনন্দে মাতেন নেইমার জুনিয়র।

স্বাগতিক সমর্থকদের ২ গোলে এগিয়ে যাওয়ার উচ্ছ্বাস অবশ্য কিছুক্ষণ পরেই মিইয়ে যায়। ৫১তম মিনিটে ডান-দিক থেকে স্বদেশি ফরোয়ার্ড ইনাকি উইলিয়ামসের ক্রসে হেডে বল জালে জড়িয়ে দলকে ম্যাচে ফেরান স্প্যানিশ ডিফেন্ডার সাবোরিত। ৬৭তম মিনিটে সুয়ারেস গোল করার মতো পজিশনে ফাঁকায় বল পেয়েও বাইরে মেরে সুযোগ নষ্ট করেন।

৭৮তম মিনিটে অবশেষে ফ্রি-কিকে মেসি জাদু। তার দারুণ বাঁকানো শট ডান পোস্টে লেগে জালে জড়ায়। দুই মিনিট পরেই সব অনিশ্চয়তা শেষ হতে পারতো; কিন্তু ডি-বক্সের মধ্যে দু’জনকে কাটিয়ে শেষটা ভালো হলো না নেইমারের। শেষ দিকে উরুগুয়ের স্ট্রাইকার সুয়ারেস আরও দুটি সহজ সুযোগ নষ্ট না করলে ব্যবধান বড় হতে পারত।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ১২.০১.২০১৬


Comments are closed.