>> নায়করাজ রাজ্জাকের দাফন আজ সকাল ১০টায় >> নারায়নগঞ্জ ৭ খুন মামলায় নূর হোসেন তারেক সাঈদসহ ১৫ জনের মৃত্যুদণ্ডেশ বহাল >> আইন সচিব জহিরুল হকের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ তিন মাস স্থগিত : হাইকোর্ট >> কোথাও কোথাও মাঝারি ধরণের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে >> পাবনায় দুই বাসের সংঘর্ষে ৫ জন নিহত ১৫ জন আহত

জেরুজালেমে দূতাবাস সরিয়ে নেবেন না: ট্রাম্পকে মিত্ররা

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

jerusalemইসরাইলের রাজধানী তেল আবিব থেকে আমেরিকার দূতাবাস অধিকৃত ফিলিস্তিনের পূর্ব বায়তুল মুকাদ্দাস বা জেরুজালেমে সরিয়ে নেয়ার বিরোধিতা করেছে ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যের মার্কিন মিত্র দেশগুলো।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের বিজয়ী প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে তারা বলেছে, তেল আবিব থেকে আমেরিকার দূতাবাস সরিয়ে নেয়া হবে খুবই বিপজ্জনক পদক্ষেপ। নির্বাচনি প্রচারণার সময় ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, বিজয়ী হলে তিনি তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস বায়তুল মুকাদ্দাসে স্থানান্তর করবেন।

ওয়াশিংটনের আরব ও ইউরোপীয় মিত্ররা বলছে, এ ধরনের পদক্ষেপে নতুন করে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়বে, কথিত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রক্রিয়া নস্যাৎ হবে এবং মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন অবস্থান ক্ষুণ্ন হবে। এছাড়া, মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন নাগরিকরা বিপদের মুখে পড়বে বলেও ট্রাম্পকে সতর্ক করেছে মিত্রদেশগুলো।

এর আগে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস চিঠি লিখে সতর্ক করেছেন ট্রাম্পকে। পাশাপাশি মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেছেন, তেল আবিব থেকে আমেরিকার দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে নেয়া হলে মধ্যপ্রাচ্যে ‘পরিপূর্ণ বিস্ফোরণ’ ঘটবে। মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর বলেছে, এ ধরনের উদ্যোগের কারণে মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন দূতাবাসগুলো, তাদের কর্মকর্তা-কর্মচারি ও সেনারা মারাত্মক ঝুঁকির মুখে চলে যাবে। এছাড়া, প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা গত মাসে বলেছেন, তেল আবিবেই মার্কিন দূতাবাস থাকবে। এর আগে প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন এবং জর্জ ডাব্লিউ বুশ মার্কিন দূতাবাস বায়তুল মুকাদ্দাসে সরিয়ে নেয়ার কথা বললেও পরে তারা সে অবস্থান থেকে সরে যান।

বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ বায়তুল মুকাদ্দাসকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয় না। অন্যদিকে, ফিলিস্তিনিরা পশ্চিম তীর, পূর্ব বায়তুল মুকাদ্দাস ও গাজা উপত্যকা নিয়ে যে স্বাধীন দেশ প্রতিষ্ঠা করতে চান যার রাজধানী হবে বায়তুল মুকাদ্দাস। ইহুদিবাদী ইসরাইল জোর করে বায়তুল মুকাদ্দাস দখল করে সেখানে তার অঘোষিত রাজধানী হিসেবে কার্যক্রম চালায়।১৯৬৭ সালের আগে যে সীমানা ছিল সেখানে ফিরে যাওয়ার দাবি জানিয়ে আসছে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ। তবে ইসলামি আন্দোলন হামাস ও জিহাদ আন্দোলনসহ কয়েকটি সংগঠন পুরো ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড দখলমুক্ত করতে চায়।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ১১.০১.২০১৬


Comments are closed.