>> কোথাও কোথাও মাঝারি ধরণের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে >> স্পেনের বার্সেলোনায় পথচারীদের উপর ভ্যান নিহত ১৩ আহত ৫০ >> সিরিয়ায় মার্কিন জোটের বিমান হামলায় ৬ বেসামরিক ব্যক্তি নিহত

মাশরাফির বিকল্প খুঁজছে বিসিবি

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

mashrafe-2ডান হাতের আঙুলে মারত্মক চোট পেয়ে মাঠের বাইরে মাশরাফি। মাঠে ফিরতে অন্তত ছয় সপ্তাহ লেগে যাবে। মার্চের শেষ সপ্তাহের আগে সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটের কোনও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নেই বাংলাদেশ দলের। সে কারনেই এই ইনজুরি নিয়ে দূর্ভাবনার কিছুই দেখছেন না মাশরাফি।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি২০ সিরিজের শেষ ম্যাচে চোট পান তিনি। সেই ম্যাচের দিনই নাকি সংক্ষিপ্ত ভার্সনের ক্রিকেট থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছিলেন। পাঁচ পাঁচবার হাঁটুর লিগামেন্টে অস্ত্রপচারেও হতদ্যম হননি এই তরুণ। নিউজিল্যান্ড সফরে দলের ছন্দপতনে সেই মাশরাফিই টি২০ থেকে অবসর নেবেন কেন?

সিইওর টেলিফোনে এই খবরটি শুনে বিস্মিত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। মাশরাফির সঙ্গে সেই সময় ফোনে কথা বলে তিনি তাকেকে সেই মুহূর্তে আটকান।

বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘‘সিইও যখন জানাল এটাই নাকি তার ( মাশরাফি) শেষ টি২০ ম্যাচ। অফিশিয়ালি ঘোষণাও করবে। তখনই সুজনকে বললাম, ওকে বলে দাও, করলে বাংলাদেশে এসে আনুষ্ঠানিকভাবে যেন ঘোষণা করে, ওখানে বসে নয়।’’

mashrafe-3আড়াই বছর আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে খুব খারাপ খেলার পর মুশফিকুর রহিমের কাছ থেকে সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটের ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব তুলে দেওয়া হয়েছিল মাশরাফি বিন মুর্তজার হাতে। ক্রিকেটারদের মোটিভেটর বলে সুখ্যাতি থাকা মাশরাফি বিসিবির সেই আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন। এই আড়াই বছরে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বিস্ময়কর সাফল্যের নেপথ্যে মাশরাফির অধিনায়কত্বের বড় ভূমিকা ছিল। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে সবচেয়ে সফল অধিনায়ক তিনি। আন্তর্জাতিক ম্যাচে জয়ের নিরিখে অন্যান্য অধিনায়কদের চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন। ওয়ানডে ক্রিকেটে ৩৭ ম্যাচের ক্যাপ্টেনসিতে ২৪টিতে জয়, গড় ৬২.১৬ শতাংশ। টি২০তে বাংলাদেশ ক্রিকেটা অধিনায়কদের মধ্যে সর্বাধিক ২৬ ম্যাচে ন’টি জয়ের মধ্যে ২০১৬ সালের এশিয়া কাপ টি২০তে পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কার মতো সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়দের হারিয়ে বাংলাদেশকে ফাইনালে তুলেছিলেন তিনি।

মাশরাফির ভবিষ্যত নিয়ে এখন উদ্বিগ্ন বিসিবি সভাপতি পাল্টে ফেলেছেন সিদ্ধান্ত। বললেন, ‘‘মাশরাফি যতদিন ফিট থাকবে, ততদিন রাখব তাকে, এটাই ছিল আমাদের সিদ্ধান্ত। তবে ফিটনেসের সঙ্গে আরও অনেক কিছুই আছে, যেসব জিনিস গুরুত্বের সঙ্গে নিতে হচ্ছে। নিউজিল্যান্ড সফরে সিরিজের টি২০ ম্যাচ ছাড়া প্রত্যেকটা সিরিজে মাশরাফি ভাল বল করেছে। তাই ওকে বাদ দিতে হবে এমন কোনও চিন্তা আমাদের মাথায় আসেনি। টেস্ট দলে তামিম, ওয়ানডে এবং টি২০ দলে সহ-অধিনায়ক হিসেবে সাকিব আছে। মাহামুদুল্লাহ ঘরোয়া ক্রিকেটে দারুণ ক্যাপ্টেনসি করেছে। এদের মধ্যে একজনই হবে পরবর্তী অধিনায়ক।’’

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ১১.০১.২০১৬


Comments are closed.