>> কোথাও কোথাও মাঝারি ধরণের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে >> স্পেনের বার্সেলোনায় পথচারীদের উপর ভ্যান নিহত ১৩ আহত ৫০ >> সিরিয়ায় মার্কিন জোটের বিমান হামলায় ৬ বেসামরিক ব্যক্তি নিহত

২০১৫-১৬ অর্থবছর অর্থনৈতিক শক্তিমত্তার মধ্য দিয়ে পার হয়েছে

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

cpdসরকার ২০১৫-১৬ অর্থবছর অর্থনৈতিক শক্তিমত্তার মধ্য দিয়ে পার করেছে বলে মনে করে বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)।

শনিবার রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে ‘বাংলাদেশ অর্থনীতি (স্টেট অব দ্যা ইকোনমি) ২০১৬-১৭ অর্থবছর’ গবেষণামুলক পর্যালোচনা উপস্থাপন উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানটির সম্মানিত ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভূট্টাচার্ষ বলেন,‘গত অর্থবছরে রফতানি, প্রবাসী আয় এবং কৃষি ক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধির হার কমলেও বাংলাদেশের অর্থনীতি সামগ্রিকভাবে শক্তিশালী পর্যায়ে ছিল। যা বিগত কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভাল।’

তিনি বলেন, এ সময়ে সার্বিক অর্থনীতি শক্তিশালী থাকলেও প্রথাগত কিছু জায়গায় (কৃষি, রেমিটেন্স ও রফতানি) শক্তিমত্তা দুর্বল হয়েছে। এর থেকে উত্তরণের পাশাপাশি সামগ্রিক অর্থনীতিতে ভারসাম্য আনতে জাতীয় সঞ্চয়পত্রের সুদের হারে সমন্বয়, তেলের দাম কমানো এবং টাকার বিনিময় হার সমন্বয় করার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. মুস্তাফিজুর রহমান, গবেষণা পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন, অতিরিক্ত গবেষণা পরিচালক ড. গোলাম মোয়াজ্জেম প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। এতে স্টেট অব ইকোনমি রিপোর্টটি উপস্থাপন করেন তৌফিকুল ইসলাম খান।

দেবপ্রিয় বলেন, চলতি অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসে ব্যক্তি খাতের বিনিয়োগ বেশ চাঙ্গা হয়েছে। তার ভাষায় ব্যক্তি খাতের বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ‘স্ফুলিঙ্গ’ দেখা দিয়েছে।এটাতে এখন আগুন লাগাতে হবে। ব্যক্তি খাতের বিনিয়োগ টেকসই করতে ব্যাংকিং খাতে সংস্কার করা, রাষ্ট্রীয় বিনিয়োগের গুণগত মান নিশ্চিত করা এবং স্থানীয় সরকার পর্যায়ে সংস্কার করার পরামর্শ দেন তিনি। তবে এগুলো করতে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত লাগবে।

সঞ্চয়পত্রের সুদ পরিশোধ করতে গিয়ে বাজেট ঘাটতি বেড়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সঞ্চয়পত্রের সুদহার কমালে ঘাটতি বাজেটের চাপ কিছুটা কমে আসবে।এ জন্য তিনি ৩টি সুপারিশ করেন। এগুলো হলো-সঞ্চয়পত্রের সুদহার সমন্বয়,কেনার ক্ষেত্রে সীমা নির্ধারণ এবং একই ব্যক্তি যেন ভিন্ন ভিন্ন নামে একাধিক সঞ্চয়পত্র কিনতে না পারে, এজন্য মনিটারিং জোরদার করা।

সরকারি বিনিয়োগের গুণমানের সমালোচনা করে বিশিষ্ট এই অর্থনীতিবিদ বলেন, রাষ্ট্রীয় বিনিয়োগের গুনগত মান আরো বাড়াতে হবে। আমরা যেন কোন কিছু ক্রয় বা তৈরি করতে গিয়ে বেশি টাকা খরচ না করি।

তিনি চলতি অর্থবছরে জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের দ্বিতীয়ার্ধের মুদ্রানীতিতে টাকার বিনিময় হার সমন্বয়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। বলেন, যেহেতু মূল্যস্ফীতি স্বস্তির মধ্যে রয়েছে, তাই ডলার প্রতি ২/৩ টাকা বাড়লে রেমিটেন্স প্রবাহ বাড়ার পাশাপাশি পোশাক ব্যবসায়ীরা লাভবান হবেন বলে আশা করছি।

চলতি জানুয়ারি মাসে কেন্দ্রিয় ব্যাংক দ্বিতীয়ার্ধের মুদ্রানীতি ঘোষণা করবে।

দেবপ্রিয় বলেন,নতুন ভ্যাট আইন ধাপে ধাপে বাস্তবায়নের সুপারিশ করছি। কারণ আমাদের মাঠ পর্যায়ে এটি বাস্তায়নের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতির এখনও অনেক বাকী রয়ে গেছে।

চলতি অর্থবছরে বাজেটে বড় ধরনের সংশোধনীর প্রয়োজন হবে বলে মনে করছে গবেষণা সংস্থাটি।

সিপিডি বলছে, রাজস্ব আয়ের বর্তমান ধারা অব্যাহত থাকলে এ বছর ৪০ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব ঘাটতি হতে পারে। অন্যদিকে, চলতি অর্থবছরে ৫১ দশমিক ৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি ধরে সরকারি ব্যয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু প্রথম প্রান্তিকে সরকারি ব্যয়ে প্রবৃদ্ধি মাত্র ১২ দশমিক ৮ শতাংশ হয়েছে।

এদিকে ব্যাংকিং খাতের সংস্কারে একটি ব্যাংকিং কমিশন গঠনের সুপারিশ করেছে সিপিডি। একইসাথে প্রতিষ্ঠানটি সরকারের দরিদ্রবান্ধব খাদ্য কর্মসূচির সুবিধাভোগি নির্বাচনে আরো বেশি সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, ০৮.০১.২০১৬


Comments are closed.