>> ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ৬০ কিলোমিটার যানজট >> লিবিয়ায় জাহাজের কন্টেইনার থেকে ১৩ অভিবাসন প্রত্যাশীর লাশ উদ্ধার >> টাঙ্গাইল মির্জাপুরে গরু ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

সৌদি নারীরা ‘পুরুষ অভিভাবক প্রথা’ বাতিল চান

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

saudi-women-2সৌদি নারীরা, বিশেষ করে বিবাহযোগ্য তরূণীরা ‘পুরুষ অভিভাবক প্রথা’ বাতিল চেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আন্দোলন গড়ে তুলছেন।

এ ছাড়া ১৪ হাজার নারী এই প্রথা বাতিল চেয়ে সৌদি রাজপ্রাসাদে আবেদন করেছেন। কয়েকশ’ নারী নিজ উদ্যোগে সৌদি বাদশার কার্যালয়ে টেলিগ্রামও পাঠিয়েছেন।

সৌদি আরবের প্রথা অনুযায়ী মেয়েদের কাজ বা লেখাপড়া করতে হলে, অথবা বিদেশে যেতে হলেও একজন পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি দরকার হয়। অনেক সময় ফ্ল্যাট ভাড়া নিতে, হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে বা আইনী উদ্যোগ নিতে গেলেও পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি লাগে। সর্বাপেক্ষা ভয়ঙ্কর ব্যাপারটি হ’ল- যে কোন সৌদি মেয়েকে “পুরুষ অভিভাবক” অনুমতি না দেয়া পর্যন্ত সে বিয়ে করতে পারে না। এ বিষয়টি এখন আর গোপন নেই, বিশেষ করে যারা সৌদি আরবে থাকেন তারা জানেন, দেশটিতে ৩০ থেকে ৪০ বছর পার হয়ে যাওয়া বহু অনূঢ়া নারী আছেন যারা কথিত পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি পাননি বলে বিয়ে করতে পারেন নি। অথচ এই সামাজিক বিধানটি আল-কোরান এবং ইসলামী আইন ও শরিয়তের পরিপন্থী।

এই প্রথার অবসানের জন্য সৌদি নারীদের আবেদনের খবর এবং টুইটারে এ সংক্রান্ত হ্যাশট্যাগ ব্যাপক আগ্রহ সৃষ্টি করেছে।

saudi_womenঅনেক নারী ‘আমিই আমার অভিভাবক’ লেখা ব্রেসলেটের ছবি শেয়ার করছেন।

কয়েক শ’ নারী সৌদি বাদশাহর কার্যালয়ে এ সম্পর্কিত একটি আবেদনপত্র নিয়ে সৌদি রাজপ্রাসাদে নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু সেখানে তাদের ‘দাবিটি ইমেল করে পাঠিয়ে দিতে’ বলা হয়।

নারী অধিকারকর্মী আজিজা আল-ইউসেফ বলছেন, তিনি এ উদ্যোগের জন্য গর্বিত বোধ করছেন।

মিস ইউসেফ এর আগে সৌদি নারীদের গাড়ি চালানোর অধিকার দেয়ার আন্দোলনেও যোগ দিয়েছিলেন। এ নিয়ে ২০১৩ সালে পুলিশ তাকে আটক করেছিল।

তাদের দাবিগুলোর একটি হচ্ছে মেয়েদের বয়েস ১৮ বা ২১ পার হলে তাকে যেন একজন প্রাপ্তবয়স্ক বলে বিবেচনা করা হয়।

অবশ্য এ ব্যাপারে সৌদি সরকারের কোনো প্রতিক্রিয়া এখনো জানা যায়নি।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, জের, ০১.১০.২০১৬


Comments are closed.