>> পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশে তেল ট্যাংকার বিস্ফোরণে ১২৩ জন নিহত

মহান মে দিবস

May Dayআজ মহান মে দিবস! পৃথিবীর অনেক দেশে মে মাসের প্রথম দিনটি মে দিবস বা শ্রমিক দিবস হিসেবে পালিত হয়। বেশকিছু দেশে মে দিবসকে লেবার ডে হিসাবে পালন করা হয়। এদিনটি সরকারী ভাবে ছুটির দিন। ১৮৮৬ সালের ১লা মে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের হে মার্কেটে ৮ ঘণ্টা শ্রমদিনের দাবীতে আন্দোলনরত শ্রমিকের ওপর গুলি চালানো হলে ১১ জন শহীদ হয়। তবে যুক্তরাষ্ট্র বা কানাডায় এইদিনটি সরকারী ভাবে পালিত হয় না। এ ছাড়ােইতিহাসের গতিপথে বিভিন্ন সময়ে এইদিনে আরও কিছু ঘটনার চিহ্ণ রয়েছে যা সংশ্লিষবট দেশে বা অঞ্চলে আঞ্চলিক ভাবে পালিত হয়।

পূর্বে শ্রমিকদের অমানবিক পরিশ্রম করতে হ’ত। প্রতিদিন গড়ে প্রায় ১০ থেকে ১৪ ঘণ্টা আর সপ্তাহে ৬ দিন, অনেক ক্ষেত্রে ৭দিন। বিপরীতে মজুরী মিলত নগণ্য, শ্রমিকরা খুবই মানবেতর জীবনযাপন করত। অনেক ক্ষেত্রে তা দাসবৃত্তির পর্যায়ে পড়ত। ১৮৮৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের একদল শ্রমিক দৈনিক ৮ ঘণ্টা কাজ করার জন্য আন্দোলন শুরু করেন এবং তাদের এ দাবী কার্যকর করার জন্য তারা কর্তপক্ষ ও সরকারকে সময় বেঁধে দেয় ১৮৮৬ সালের ১লা মে। কিন্তু কারখানা মালিকগণ এ দাবী মেনে না নিলে, ৪ঠা মে ১৮৮৬ সালে সন্ধ্যাবেলা হালকা বৃষ্টির মধ্যে শিকাগোর হে-মার্কেট নামক এক বাণিজ্যিক এলাকায় শ্রমিকগণ মিছিলের উদ্দেশ্যে জড়ো হন। তারা ১৮৭২ সালে কানাডায় অনুষ্ঠিত এক বিশাল শ্রমিক শোভাযাত্রার সাফল্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে এটি করেছিলেন।

আগস্ট স্পীজ নামে এক নেতা সেখানে জড়ো হওয়া শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা বলছিলেন। হঠাৎ পুলিশের উপস্থিতিতে সেখানে সংঘর্ষ শুরু হয় এবং পুলিশবাহিনী তৎক্ষনাত শ্রমিকদের উপর গুলি চালালে ১১ জন শ্রমিক শহীদ হন। এ ঘটনায় বরং উল্টো এক পুলিশ হত্যা মামলায় আগস্ট স্পীজ সহ আটজনকে অভিযুক্ত করা হয়। এক প্রহসনমূলক বিচারের পর ১৮৮৭ সালের ১১ই নভেম্বর উন্মুক্ত স্থানে আগস্ট স্পীজসহ ৬ জনের ফাঁসি কার্যকর করা হয়। লুইস লিং নামে একজন একদিন পূর্বেই কারাগারের অভ্যন্তরে আত্মহত্যা করেন। অন্য একজনের পনের বছরের কারাদন্ড হয়।

ফাঁসির মঞ্চে আরোহনের পূর্বে আগস্ট স্পীজ বলেছিলেন, “আজ আমাদের এই নি:শব্দতা, তোমাদের আওয়াজ অপেক্ষা অধিক শক্তিশালী হবে”। ২৬ জুন ১৮৯৩, আমেরিকার ইলিনয় অঙ্গরাজ্যের গভর্ণর অভিযুক্ত আটজনকেই নিরপরাধ বলে ঘোষণা দেন এবং রায়টের হুকুম প্রদানকারী পুলিশের কমান্ডারকে দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত করেন। আর বোমা বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে দাঙ্গা সৃষ্টিকারী অজ্ঞাত সেই বোমা বিস্ফোরণকারীর পরিচয় কখনোই প্রকাশ পায়নি। ধারণা করা হয় সে পুলিশের লোক বা পুলিশের বা কারখানা মালিকদের ভাড়া করা লোক ছিল।

পরে ১৮৮৯ সালের ১৪ জুলাই প্যারিসে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক শ্রমিক সম্মেলনে শিকাগোর রক্তঝরা অর্জনকে স্বীকৃতি দিয়ে ওই ঘটনার স্মারক হিসেবে ১ মে ‘আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। ১৮৯০ সাল থেকে প্রতি বছর দিবসটি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ‘মে দিবস’ হিসাবে পালন করতে শুরু করে।

শেষ পর্যন্ত শ্রমিকদের “দৈনিক আট ঘণ্টা কাজ করার” দাবী অফিসিয়াল স্বীকৃতি পায়। আর পহেলা মে বা মে দিবস প্রতিষ্ঠা পায় বিশ্বব্যাপী শ্রমিকদের দাবী আদায়ের দিন হিসেবে। পৃথিবীব্যাপী আজও তা পালিত হয়।

বাংলাদেশে প্রথম মে দিবস পালিত হয় নারায়ণগঞ্জে, ১৯৩৮ সালে। তখন ব্রিটিশ শাসনা। তারপর পাকিস্তান আমলেও মে দিবস যথাযথ উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে পালিত হয়েছে। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭২ সালে বাংলাদেশে বিপুল উদ্দীপনা নিয়ে মে দিবস পালিত হয়। ঐ বছর সদ্য স্বাধীন দেশে পয়লা মে সরকারি ছুটি ঘোষিত হয়।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, জের, ০১.০৫.২০১৬


Comments are closed.