>> ইরাক ও সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত আরও ৬১

সোয়ান গার্মেন্টের শ্রমিকদের ইসলামী ব্যাংক ঘেরাও

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Islami bank besiege by Swan garment workersবাংলাদেশের সোয়ান গার্মেন্টসের শ্রমিকরা তাদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করে কারখানা চালু এবং মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে রাজধানীর দিলখুশা বানিজ্যিক এলাকায় অবস্থিত ইসলামী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ঘেরাও করেছে।

টানা ১২ দিন ধরে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করছে শ্রমিকরা। সেখান থেকে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে শ্রমিকরা দিলকুশায় ইসলামী ব্যাংকের সামনে অবস্থান নেয়। দুপুরের পরে তারা আবার প্রেস ক্লাবের সামনে ফিরে আসে।

সোয়ান গার্মেন্টসের শ্রমিকরা জানান, তারা ঈদের আগ থেকে বকেয়া বেতন ও বোনাসের দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন। কিন্তু সরকার বা মালিক কর্তৃপক্ষ তাদের দাবিদাওয়া পূরণে কোনো কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়নি।

শ্রমিবরা আরো জানান, সোয়ান গার্মেন্টসের মালিকরা ইসলামী ব্যাংকে কারখানা বন্ধক রেখে ঋণ নিয়েছে।এ ছাড়া গত ১৮ জুন সোয়ান গার্মেন্টেসের গোডাউনের মালামাল লুটের অভিযোগে ইসলামী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছে।

ঘেরাও কর্মসূচিতে গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি অ্যাডভোকেট মন্টু ঘোষ বলেন, ইসলামী ব্যাংক চাইলেই শ্রমিকদের বকেয়া পরিশোধ করে দিতে পারে। তাই তাদের বকেয়া পরিশোধ করে দ্রুত পুনরায় গার্মেন্টস চালুর উদ্যোগ নিতে হবে।

এ ছাড়া শ্রমিকদের বিরুদ্ধে ইসলামী ব্যংকের দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার করে নিতে হবে। তা নাহলে ভবিষ্যতে আরও কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।

এদিকে, সোয়ান শ্রমিকদের দাবি বিবেচনার জন্য সরকার গঠিত কমিটি আজ বিকেলে বৈঠকে বসে এবং ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে আরো লোন দিয়ে শ্রমিকদের বেতন-বোনাস পরিশোধের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এ প্রসঙ্গে আন্দোলনরত গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন রেডিও তেহরানকে জানান, আগামী মঙ্গলবারের মধ্যে শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধের ব্যাপারে আশ্বাস দেয়া হয়েছে। তবে পাওনা বুঝে না পাওয়া পর্যন্ত তাদের অবস্থান বর্মসূচি চলবে।

ওদিকে সোয়ান শ্রমিকদের আন্দোলন প্রসঙ্গে ইসলামী ব্যাংকের অ্যাসিসটেন্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট নজরুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেছেন, প্রতিষ্ঠানটি ইসলামী ব্যাংকের কাছে ৪০ কোটি টাকা দেনায় আবদ্ধ। গত এপ্রিলে সোয়ান গ্রুপের মালিক আত্মহত্যা করেন। তাই এ টাকা আদায়ের জন্য আইনানুগ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। এর মধ্যে সোয়ান গার্মেন্টেসের গুদামের মালামাল লুটপাট হলে থানায় একটি জিডি করা হয়।

তিনি আরও বলেন, শ্রমিকদের বেতন তো প্রতিষ্ঠানের মালিক দেবেন। ইসলামী ব্যাংক প্রতিষ্ঠানটিতে বিনিয়োগ করেছিল। ব্যাংকিং নিয়ম অনুযায়ী ব্যাংক তার পাওনা আদায়ের জন্য ঊদ্যোগ নিয়েছে। এ ক্ষেত্রে ইসলামী ব্যাংকের বিরুদ্ধে শ্রমিকদের বিক্ষোভ অর্থহীন।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, জের, ২৪.০৭.২০১৫


Comments are closed.