>> ইরাক ও সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত আরও ৬১

ইউক্রেণে রাশিয়ার দুই লক্ষ সৈন্য?

প্রতাপ কামাল

Poroshenkoইউক্রেণের প্রেসিডেন্ট পোরোশেঙ্কো দাবী করেছেন, তার দেশের পূর্বাংশে রাশিয়ার ২০০,০০০ সৈন্য অনুপ্রবেশ করেছে। তাঁর এ দাবী সকলকে বিস্মিত করেছে। কারণ, মাত্র তিন সপ্তাহ আগে তিনি বলেছিলেন, পূর্ব ইউরোপে ৯,০০০ রুশ সেনা রয়েছে। এখন তিনি যে দাবী করছেন তা আগের দাবীর ২০ গুণেরও বেশী।

ইতালীর পত্রিকা “কোরিয়ের দেলা সেরাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “আজ পুতিনের নির্দেশে ২০০,০০০ সেনা এবং সাঁজোয়া যান, অত্যাধুনিক মিসাইল সিস্টেম, বিমান বিধ্বংসী কামানসহ অসংখ্য অস্ত্র আমাদের ভূখণ্ডে জড়ো করা হয়েছে”। তিনি আরও বলেন, “এসব অস্ত্রের একটি দিয়ে মালয়েশিয়ার বিমানটি ভূপাতিত করা হয়েছিল”।

এটা পরিস্কার নয়, পোরোশেঙ্কো এই বিশাল সংখ্যাটি কোথায় পেয়েছেন। দুই লক্ষ বললে রাশিয়ার মোট সৈন্য সংখ্যার চার ভাগের এক ভাগ বুঝয় এবং ইউক্রেণের পুরো সেনাবাহিনীর সমান বুঝায়। পোরোশেঙ্কো যদি তাঁর দাবী সত্য বলতে চান, তাহলে বুঝতে হবে রাশিয়ার সেনারা ষ্টিলথ বিমানের মত অদৃশ্য হয়ে চলাচল করতে শিখেছে। যে কারনে তারা কেবল পোরোশেঙাকোর “রাডারে” ধরা পড়ে, কিন্তু ইউক্রেণে অবষ্থানকারী কয়েক শত সাংবাদিক, টিভি ক্যামেরাম্যান এবং শতাধিক ওএসসিই পর্যবেক্ষকের চোখে ধরা পড়ে না। কোন গোয়েন্দার সংস্থা বা অত্যাধুনিক উপগ্রহ তাদের ইউক্রেণে প্রবেশ এবং বার বার সীমান্ত অতিক্রম করে রাশিয়ায় যাতায়াতও ধরতে পারছে না।

মাত্র গত রবিবার খবর প্রকাশিত হয়েছে যে, পূর্ব ইউক্রেণে দেশটির ৬০,০০০ সৈন্য রয়েছে। এ সংখ্যা মার্চ মাসে মিনস্ক ২ চুক্তি সম্পাদনের সময়ের সংখ্যার তিন গুণ। তার অর্থ কিয়েভ মিনস্ক ২ চুক্তি ভঙ্গ করে পূর্ব ইউক্রেণে অতিরিক্ত সৈন্য ও অস্ত্র প্রেরণ করছে। পূর্ব ইউক্রেণে দেশটির ৬০,০০০ সেনার উপস্থিতি সম্পর্কে মার্কিন ষ্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র মেরী হার্ফকে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে তিনি বলেন,” ইউক্রেণের নিজ ভূখন্ডে সে সৈন্য পাঠাবে এটাই স্বাভাবিক।” তবে াতান তিনি মিনস্ক ২ চুক্তির বিষয়টি বার বার এড়িয়ে যান।

এর পরেই পোরোশেঙ্কো এমন আজগুবী দাবী করে বসলেন। অনেক পর্যবেক্ষক বলেছেন, এ তথ্য পোরোশেঙ্কো “বোতলজাত” গবেষণা থেকে পেয়ে থাকবেন।

বাংলাদেশনিউজ
০১.০৭.২০১৫


Comments are closed.