>> কুমিল্লা বিক্টোরিয়ান্সকে হারিয়ে রংপুর রাইডার্স বিপিএল ফাইনালে >> হবিগঞ্জে ৫ জেএমবি সদস্য আটক

কুর্দি ও সুন্নিদের আবার অস্ত্র দেয়ার পরিকল্পনা আমেরিকার

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Arms dropped from plane for ISILআমেরিকা আবার ইরাকের কুর্দি ও সুন্নিদের অস্ত্র সরবরাহের পরিকল্পনা করছে। এ সংক্রন্ত একটি পরিকল্পনা আমেরিকার কংগ্রেসে উপস্থাপন করা হয়েছে।

এর আগে সিরিয়ার “মডারেট বিদ্রোহী”দের অস্ত্র প্রদান কর্মসূচীর আওতায় আমেরিকা সিরিয়া ও ইরাকের উগ্রপন্থী সুন্নী জঙ্গীদের অস্ত্র দিয়েছে। সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারী ক্লিন্টনের সেই কর্মসূচীর সহায়তায় সিরিয়া ও ইরাকে ইসলামিক ষ্টেট এ সিরিয়া এণ্ড লেভ্যান্ট বা আইএসআইএল গঠন করা হয়।

পরে আবার আইএস দমনে ইরাক সরকারকে সহযোগিতার নামে রাত্রে রাত্রে গোপেন মার্কিন এ ব্রিটিশ বিমান থেকে অস্ত্র ফেলা হয় আইএসআইএল-এর জন্য। এরপর ঘোষণা করা হয় কংগ্রেস কর্তৃক অনুমোদিত ৬০০ মিলিয়ন ডলার তহবিলের, যার আওতায় তুরস্ক, সৌদি আরব, কাতার, কুয়েত, আমিরাত এবং সম্ভবতঃ ইসরায়েল সিরিয়ার বিদ্রোহীদের প্রশিক্ষণ, অস্ত্র ও অর্থ প্রদান করবে। আমেরিকার পরিকল্পনায় সুন্নী, জেহাদী- বিভিন্ন তকমা ব্যবহার করা হলেও কার্যতঃ এরা আইএসআইএল। আমেরিকা, সৌদি আরব, ইসরায়েল ও তুরস্কের প্রচষ্টোয় সিরিয়া ও ইরাকের উগ্রপন্থী সুন্নীদের নিয়েই আইএসআইএল গঠিত হয়।

এদিকে, ইরাক সরকার সেদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মার্কিন বিদ্বেষ ও হস্তক্ষেপমূলক পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা করেছে। মার্কিন কংগ্রেস ইরাক সরকারের অনুমোদন ছাড়াই সেদেশের কুর্দি ও সুন্নি বিদ্রোহীদের কাছে সরাসরি অস্ত্র দেয়ার বিষয়ে একটি পরিকল্পনা উত্থাপন করার পর ইরাকের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করলো।

ইরাকের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে মার্কিন কংগ্রেসের এ পদক্ষেপের সমালোচনা করে একে ইরাকের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে। বিবৃতিতে মার্কিন কংগ্রেসের এ ধরণের পরিকল্পনাকে ইরাকিদের ঐক্য ও সংহতির প্রতি আঘাত হিসেবে আখ্যায়িত করে বলা হয়েছে, কোনো গ্রুপকে সহযোগিতা করতে হলে অবশ্যই বাগদাদের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে। ইরাকের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যুক্তরাষ্ট্রকে উদ্দেশ্য করে বলেছে, সন্ত্রাস বিরোধী যুদ্ধও হতে হবে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে।

এর আগে ইরাকের প্রধানমন্ত্রীর গণসংযোগ দফতরের পক্ষ থেকেও বাগদাদের অনুমতি ছাড়াই কুর্দি ও সুন্নিদের অস্ত্র দেয়ার ব্যাপারে মার্কিন কংগ্রেসের পরিকল্পনার তীব্র বিরোধিতা করা হয়েছিল। ইরাকের প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্কিন কংগ্রেসের ওই পরিকল্পনার বিরোধিতা করে বলেছেন, প্রয়োজনে কুর্দি ও সুন্নিদের অস্ত্র দেয়ার দায়দায়িত্ব ইরাকের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওপরই বর্তায় এবং এ ব্যাপারে বাইরের কারো হস্তক্ষেপ বাগদাদ মেনে নেবে না।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, ইরাকের ব্যাপারে আমেরিকার এই প্রতারণা ও চাতুর্যপূর্ণ পদক্ষেপ থেকে মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন দুরভিসন্ধির বিষয়টি আগের চেয়ে আরো বেশি স্পষ্ট হয়ে পড়েছে। তাদের মতে মার্কিন কংগ্রেসের এ পদক্ষেপ থেকে বোঝা যায়, দেশটি এখনো ‘বৃহৎ মধ্যপ্রাচ্য’ পরিকল্পনা পুনরুজ্জীবিত করাসহ এ অঞ্চলে তাদের সাম্রাজ্যবাদী ও আধিপত্যকামী লক্ষ্য বাস্তবায়ন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এভাবে তারা নতুন মধ্যপ্রাচ্য গঠনের মাধ্যমে এ অঞ্চলের দেশগুলোকে ভেঙ্গে টুকরো টুকরো করার চেষ্টা করছে।

আমেরিকার ‘বৃহৎ মধ্যপ্রাচ্য’ পরিকল্পনা বাস্তবায়নের আওতায় তাদের অন্যতম টার্গেট হচ্ছে ইরাক। মার্কিন কর্মকর্তারা ইরাকের ব্যাপারে তাদের নীল নক্সা বাস্তবায়নের জন্য যে কোনো সুযোগকে কাজে লাগানোর চেষ্টা করছেন। এরই অংশ হিসেবে কথিত সন্ত্রাসবাদ দমনের নামে মার্কিন নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক জোট গঠন করে তারা ইরাকে নিজেদের ইচ্ছে অনুযায়ী কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে। ইরাকের সরকার ও সেনাবাহিনীর সঙ্গে কোনো রকম পরামর্শ না করেই সন্ত্রাস বিরোধী সামরিক অভিযান চালানোর কারণে মার্কিন নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক এই জোট কার্যত সন্ত্রাস রোধে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আমেরিকা সন্ত্রাসবাদ নির্মূলে ইরাককে সহায়তার নামে সেদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করে যাচ্ছে এবং ইরাকের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপমূলক বিভিন্ন আইন তৈরি করে সেদেশটিকে খণ্ড বিখণ্ড করার পদক্ষেপ নিয়েছে। এ অবস্থায় ইরাকের কর্মকর্তারা এবং দেশটির জনগণ আমেরিকার এ ষড়যন্ত্রের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে। বিশ্লেষকরা বলছেন, শত্রুদের ষড়যন্ত্র মোকাবেলার জন্য প্রয়োজন ইরাকের সরকার ও জনগণের মধ্যে আরো বেশি ঐক্য ও সংহতি।

# সংগৃহীত, সম্পাদিত, পরিবর্ধিত ও পরিমার্জিত

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ, এসএস, জের, ৩০.০৪.২০১৫


Comments are closed.