>> ইরাক ও সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত আরও ৬১

জামায়াত ও ইরানী গণমাধ্যম

BDN Editorialবর্তমান বিশ্বে নিরপেক্ষ ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের প্রশ্নে ইরানী গণমাধ্যমগুলির বিশ্বাসযোগত্যতা আল-জাজিরা, বিবিস ও সিএনএন এর চেয়ে অনেক উপরে, আরটিডটকম এর কাছাকাছি বলা যায়। কিন্তু রহস্যজনক কারণে বাংলাদেশে ইরানের গণমাধ্যমগুলির যোগাযোগ ইসলামপন্থী দল ও মিডিয়াগুলোর সাথে। বিশেষ করে প্রেসটিভি এবং রেডিও তেহরানের।

বাংলাদেশে তাদের সাংবাদিকরাও একই ঘরানার। যে কারণে কামরুজ্জামানের ফাঁসি সংক্রান্ত খবরগুলি ইরানী গণমাধ্যমে হুবহু পাকিস্তানী গণমাধ্যম ও আল-জাজিরা, বিবিসি’র অনুরূপ।

ইরানের গণমাধ্যম বাংলাদেশের স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ, যুদ্ধাপরাধ, রাজাকার, জামায়াতের রাজনীতি এবং যুদ্ধাপরাধের বিচারকে জামায়াত, পাকিস্তান, তুরস্ক, ও সৌদি মৌলবাদীদের দৃষ্টিতেই দেখে। এসংক্রান্তে তাদের প্রচারিত সংবাদ, প্রতিবেন, নিবন্ধ এবং সাক্ষাৎকারগুলো সে কথাই বলে। জামায়াত নেতাদেরও তারা ‘মুসলিম চিন্তাবিদ ও পন্ডিত’ বলেই মনে করে। জামায়াতের একাত্তরের ভূমিকা ও বর্বর গণহত্যা ও পাশবিকতার প্রসঙ্গ সহজে উল্লেখ করতে চায় না, বরং এড়িয়ে চলে।

রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে পাকিস্তান, তুরস্ক ও সৌদি আরবের সাথে ইরানের ধর্মীয়, রাজনৈতিক, ভূ-রাজনৈতিক এবং কৌশলগত মতপার্থক্য থাকলেও বাংলাদেশের জামায়াতের প্রশ্নে তাদের সবার দৃষ্টিভঙ্গী এক। বুঝতে কষ্ট হয়না ইরান প্রকাশ্যে ইসলামী মৌলবাদকে সমর্থন করে না বললেও জামায়াত প্রসঙ্গে তাদের দৃষ্টিভঙ্গী ও আচরণ খুবই বাস্তবতা বিবর্জিত ও পক্ষপাতদুষ্ট। অার সেটারই প্রতিফলন ঘটছে ইরানী গণমাধ্যমে। এটা খুবই দুঃখজনক। জামায়াত প্রসঙ্গে ইরান সরকার ও ইরানী গণমাধ্যমের এ আচরণ পরিবর্তিত ও বস্তনিষ্ঠ হওয়া আবশ্যক।

বাংলাদেশনিউজ
১৩.০৪.২০১৫


Comments are closed.