>> শনিবার সকালে উত্তর কোরিয়া আবার ব্যালিষ্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে >> পরস্পর আন্তঃসংঘর্ষে সিরিয়ায় পূর্ব দামেস্কে ৪০ সন্ত্রাসী নিহত >> মিয়ানমারের দক্ষিণপূর্বাঞ্চলে বাস দুর্ঘটনায় নিহত ১৯ আহত ২১ >> রাজধানী ঢাকায় ট্রাকচাপায় ২ জন নিহত >> আখাউাড়ায় ট্রাকচাপায় নিহত ১ আহত ৩ >> মাগুরায় সড়ক দুর্ঘটনায় এক মোটর সাইকেল আরোহী নিহত

সরকারের সঙ্গে শান্তি আলোচনায় বসতে আগ্রহী আফগান তালেবানরা

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ

Afghan Talibanআফগানিস্তানের তালেবানরা সরকারের হাতে আটক তাদের কমান্ডারদের সঙ্গে অপহৃত পুলিশের বন্দী বিনিময়ের আহবান জানিয়েছে।

আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি সরকারের শান্তি আলোচনায় যোগ দেয়ার জন্য তালেবানদের প্রতি আহবান জানানোর পর এ গোষ্ঠীটি বন্দী বিনিময়ের ওই দাবি জানালো। আফগানিস্তানের বাদাখশান প্রদেশের মুখপাত্র আহমাদ নেভিদ ফুরুতান বন্দী বিনিময়ের এ খবর জানিয়েছেন। এর আগে ভারদুজ উপশহরের গভর্নর মোহাম্মদ খভার বলেছিলেন, সরকার স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের মধ্যস্থতায় তালেবানের হাতে অপহৃত ১৬ পুলিশকে উদ্ধারের চেষ্টা করছে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, তালেবানরা তাদের হাতে অপহৃত ১৬ পুলিশের বিনিময়ে জেলখানায় আটক তালেবান কমান্ডারদের মুক্ত করার যে প্রস্তাব দিয়েছে তা থেকে বোঝা যায়, শান্তি আলোচনার ব্যাপারে দু’পক্ষেরই বিশেষ আগ্রহ ফুটে ওঠার পাশাপাশি আফগান সরকারের ব্যাপারে তালেবানদের মনোভাবে ইতিবাচক পরিবর্তনের আভাস পাওয়া যায়।

আফগানিস্তানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন এবং জাতীয় ঐক্যমত্যের সরকার প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর দেশটির জনগণ নিরাপত্তা পরিস্থিতির উন্নয়নের ব্যাপারে ব্যাপক আশাবাদী হয়ে উঠেছে। কারণ সব রাজনৈতিক দল ও গোষ্ঠীর সমন্বয়ে সরকার গঠিত হয়েছে এবং দেশটির সমস্যা সমাধানের জন্য নজিরবিহীন ঐক্য ও সংহতি সৃষ্টি হয়েছে। এ অবস্থায় তালেবানসহ অন্যান্য গোষ্ঠী আগের চেয়ে আরো বেশি কোণঠাসা হয়ে পড়েছে। এমন কি কোনো কোনো এলাকায় জনগণ তালেবানের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে এবং সেসব শহর বা গ্রাম থেকে তারা তালেবানদের  বের করে দিয়েছে। এ কারণে ধারণা করা হচ্ছে, তালেবান গোষ্ঠীর কেউ কেউ আফগানিস্তানের পরিবর্তিত পরিস্থিতি উপলব্ধি করতে পেরেছে এবং তারা এখন নিজেদের পরিবারে ফিরে গিয়ে শান্তিপূর্ণ জীবন যাপন করার চিন্তাভাবনা করছে।

সম্প্রতি তালেবানের বহু সদস্য অস্ত্র সমর্পণ করেছে। এ ছাড়া আফগান সেনাবাহিনী বিদেশি বাহিনীর কাছ থেকে দেশটির নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্ব নেয়ার পর তারা তালেবানদের নিয়ন্ত্রণে ব্যাপক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কারণ দখলদার সেনারা তালেবানের সঙ্গে সংঘর্ষে যেতে তেমন একটা আগ্রহী ছিল না। আফগান সেনাবাহিনীর ব্যাপক সামরিক অভিযানের মুখে বহু তালেবান সদস্য নিহত হওয়ায় তালেবানরা বেশ কোণঠাসা হয়ে পড়েছে।

আফগানিস্তানের বাদাখশান প্রদেশের মুখপাত্র আহমাদ নেভিদ ফুরুতান বলেছেন, তালেবানের হাতে অপহৃত পুলিশদের উদ্ধারের জন্য সেনা অভিযান চলছে। তিনি আরো বলেছেন, সরকার ও নিরাপত্তা বাহিনী সামরিক অভিযানের পাশাপাশি তালেবানের সঙ্গে আলোচনাও চালিয়ে যাচ্ছে যাতে করে তাদেরকে আত্মসমর্পণে বাধ্য করা যায়। আফগানিস্তানের নতুন প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি অভ্যন্তরীণ ও আঞ্চলিক বিভিন্ন মহলের সহযোগিতায় তালেবানদেরকে আলোচনার টেবিলে বসানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন। তালেবানরাও তাদের আচরণে ইতিবাচক পরিবর্তন আনা থেকে বোঝা যায় সরকারের সঙ্গে তারা আলোচনায় বসতে আগ্রহী। বিশেষ করে তালেবানরা এখন এটা বুঝতে পেরেছে যে, সামরিক উপায়ে তারা আফগানিস্তানের ক্ষমতায় কোনো দিন যেতে পারবে না। কারণ আঞ্চলিক সহযোগিতা ও সমর্থনে আফগানিস্তানের বর্তমান সরকার বেশ শক্ত অবস্থানে রয়েছে।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ,  এসএস, জের, ০৭.১১.২০১৪


Comments are closed.