>> ইরাক ও সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত আরও ৬১

নির্মমতার ইতিহাস

সুকান্ত পার্থিব

Sukanta Parthib

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 
যদিও সেই নির্মম করুণ ইতিহাসের সাক্ষী ছিলাম না;
জন্মগতভাবে পৃথিবীর আলো’কেও স্পর্শ করিনি তখনো!
তবু ইতিহাসের রক্তাক্ত পাতা থেকে পাশবিকতা-ভয়াবহতা’র দুঃসহ
স্মৃতি শ্রদ্ধাবনচিত্তে স্মরণ করে
নির্মোহ সত্য বলতে মেরুদণ্ড শক্ত করে
বিবেকের মঞ্চে এসে স্থির হয়ে আজ দাঁড়িয়েছি।

কতটা বর্বরতা, বন্য পশুর হিংস্র থাবার মতোন আক্রমণ,
মানুষরূপী জানোয়ারের বেয়নেটের তীব্র খোঁচায় খোঁচায় নিষ্পেষিত
আর বুক বুলেটের ঝাঁঝরা আঘাতে ক্ষত-বিক্ষত!

যে পবিত্র মাটির বুকে দাঁড়িয়ে স্বাধীনতার
পরাশক্তির দোসরের নির্মম হত্যাযজ্ঞ
সে মাটি’র প্রতিটি কণা পরিপূর্ণতা পেয়েছিল
লাখো শহীদের পূন্যস্নাত রক্তে,
আর জেলহাজতে ধুঁকে ধুঁকে নিপীড়িত
চার শহীদের বীরত্বগাঁথা’র রক্তের শোকমালায় নিথর দেহ শায়িত!

ছাপান্নো হাজার বর্গমাইলের সোনার খনি’কে
শত-সহস্র বছর প্রতিক্রিয়াশীলতার দিকে পা বাড়িয়ে
আজও দ্বন্দ্বের ফাঁদে পড়ে সহিংসতার রাজনীতিতে লিপ্ত বাংলাদেশ।

কী অর্জন হয়েছে অন্ধকারচ্ছন্নতায় ভরা
বেয়নেটের আঘাতে ক্ষত-বিক্ষত রক্তাক্ত রাতের জন্ম দিয়ে?
সবকিছু হারিয়ে জমাট বাঁধা রক্ত বুকে বহন করে
বাংলাদেশ আজও বড়ই নিঃস্ব থেকে নিঃস্বতর হতে চলেছে!

“মুক্তিযুদ্ধ” –অর্জিত পবিত্র শব্দটিকে নিয়ে রাজনীতিকগণ
রমরমা প্রতিহিংসার জবাহবৃত্তি ব্যবসায় ভরপুর
ক্ষমতায় আসার মহাদৌরাত্ম্যৈ দলের প্রতিষ্ঠাতার নাম
কবিরাজী ঔষধ হিশেবে বেচে!!!

আবারো বলছি, আমি সাক্ষী ছিলাম না
সেই পাশবিকতায়-নির্মমতার;
যা রক্তের কালিতে ইতিহাসের পাতায় পাতায় খচিত।
তাই, মহাকালের বর্তমান সাক্ষী হিশেবে
সেকালের সাথে একালের করুণতা
বলপয়েন্ট কলমের কালিতে-ই লিখে গেলাম নির্ভয়ে-নিঃসঙ্কোচে।

বাংলাদেশনিউজ২৪x৭.কম
০৬.১০.২০১৩


Comments are closed.