>> বরগুণায় সাগরে ট্রলার ডুবি ৪ জেলে উদ্ধার ৪ জন নিখোঁজ >> টেষ্ট অধিনায়কত্ব হারালেন মুশফিকুর রহিম >> নতুন টেষ্ট অধিনায়ক সাকিব আল-হাসান সহ-অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফ্যাক্টর ৭০ লাখ তরুণ ভোটার

নিউজডেস্ক, বাংলাদেশনিউজ২৪x৭.কম

shongshoDআগামী নির্বাচনে হার-জিতের বড় ফ্যাক্টর হবে ৭০ লক্ষাধিক নতুন ভোটার।  সচেতন এই তরুণ প্রজন্ম গতানুগতিক বুলিসর্বস্ব রাজনীতিতে বিশ্বাসী নয়।  অতীতের অনেক সময়ের চেয়ে এ প্রজন্ম সচেতন ও চিন্তায় বাস্তবমুখী।

রাজনৈতিক দলগুলোর লক্ষ্যহীন-স্বপ্নহীন রাজনীতি তরুণ এই ভোটারদের হতাশ করেছে বার বার। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে হেফাজতে ইসলামকে তোষণ আর শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চ থেকে আওয়ামী লীগের সমর্থন তুলে নেওয়াকে মেনে নিতে পারেনি তরুণ ভোটাররা। তাই আগামী নির্বাচন সামনে রেখে এই তরুণ ভোটারদের সমর্থন পেতে দুই জোট আদা-জল খেয়ে মাঠে নেমেছে। আওয়ামী লীগের গত নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয়ে বড় ভূমিকা রেখেছিল ৩ কোটি নতুন ভোটার। দিনবদলের সনদ আর ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখিয়ে তখন তরুণ ভোটারদের মন কাড়া হয়েছিল। এবারও তেমন উপায় খুঁজছে দলটি।

এক্ষেত্রে গতবারের মতোই কিছুটা বেকায়দায় রয়েছে প্রধান বিরোধীদল বিএনপি। কারণ তাদের সঙ্গে রয়েছে যুদ্ধাপরাধী জামায়াত, আছে বিতর্কিত হেফাজতে ইসলাম— যা তরুণ ভোটারদের অপছন্দ।

নবীন ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্রচার-প্রপাগান্ডায় বিশ্বাস নেই তাদের। প্রধান দুই দল— আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে একই মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ মনে করে তারা। তাই গত নির্বাচনে ৩ লাখ ৮৩ হাজার ৬১৫টি ‘না’ ভোট পড়েছে। এবার এই সংখ্যা আরও বাড়বে। কিন্তু না ভোটের বিধান বাতিল হওয়ায় এবার অনেকেই ভোটদান থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এবারও আওয়ামী লীগের ইশতেহারে প্রাধান্য পাচ্ছে নবীন আর তরুণ ভোটারদের চাহিদা। শিক্ষা, আইটি, জ্বালানি আর খাদ্য নিরাপত্তাকে রাখা হচ্ছে বিবেচনার শীর্ষে। এছাড়া যুদ্ধাপরাধের বিচারের ধারাবাহিকতা রক্ষা, জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসের উত্থান বন্ধে নতুন আইন প্রণয়ন, সমুদ্র বিজয়, দারিদ্র্যবিমোচন, কর্মসংস্থান, শিল্পায়নের বিষয়গুলোও গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরার চিন্তায় এগোচ্ছে। তরুণ ভোটারদের বিষয়ে জোর দিচ্ছে প্রধান বিরোধীদল বিএনপিও। ভোটারদের সামনে সরকারের বিভিন্ন ব্যর্থতা ও ভারতবিরোধী অনুভূতি কাজে লাগাতে চাচ্ছে। তরুণ ভোটারদের মন জয় করতে চাচ্ছে বাকি দলগুলোও। সে অনুযায়ী আগামী নির্বাচনের ইশতেহার সাজাচ্ছে প্রতিটি দল।

আওয়ামী লীগের ইশতেহার প্রসঙ্গে দলটির সভাপতিম-লীর সদস্য নূহ আলম লেনিন বলেন, নতুন প্রজন্মের চিন্তা-চেতনা ও রুচির কথা মাথায় রেখে নির্বাচনি স্লোগান ও ইশতেহার তৈরি হচ্ছে। সময়ের সঙ্গে যায় এমন একটি বিজ্ঞানভিত্তিক ইশতেহার রচনার জন্য কাজ করছি।

আরও বলেন, ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নই হবে ইশতেহারের মূল টার্গেট।

অন্যদিকে বিএনপির দপ্তর সম্পাদক রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেন, তরুণদের জন্য আমরা ‘নতুন ধারার সরকার’ গঠনের রূপরেখা নিয়ে এগোচ্ছি। বিশ্ব এগিয়ে যাচ্ছে, আমাদের তরুণরা যেন সময়ের সঙ্গে তাল মেলাতে পারে ক্ষমতায় এলে তা নিশ্চিত করা হবে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, এখনকার তরুণ প্রজন্ম অতীতের অনেক সময়ের চেয়ে রাজনৈতিকভাবে সচেতন। তারা পরিবার ও গতানুগতিক রাজনীতির বাইরেও চিন্তা করে। যে কারণে নতুন এসব ভোটার দলগুলোর জন্য কিছুটা দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াবে। আর এক্ষেত্রে ক্ষমতাসীন দল হিসেবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে আওয়ামী লীগকে। কেননা গতবার যারা নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়েছিল তাদের অনেকেই এবার আওয়ামী লীগের ওপর ক্ষুব্ধ। সীমান্তে কিশোরী ফেলানিহত্যা, গণজাগরণ মঞ্চ থেকে সমর্থন প্রত্যাহার, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নিয়ে কাঙ্ক্ষিত সাফল্য না আসা, হেফাজতের তালিকা অনুসারে ব্লগারদের গ্রেফতার, চাকরিতে কোটাপদ্ধতি, শেয়ার বাজার, পদ্মা সেতু, ছাত্রলীগের সন্ত্রাস, হলমার্ক কেলেঙ্কারি, সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যার বিচার, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর স্বেচ্ছাচারিতা, দলীয় সন্ত্রাসীদের রেকর্ড পরিমাণ মামলা প্রত্যাহার, শিক্ষকদের ওপর পুলিশি হামলা তাদের মনে দাগ কেটেছে।

এসব সমস্যা মাথায় রেখেই ইতোমধ্যে প্রচারণায় নেমেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাতনয় সজীব ওয়াজেদ জয়। নিজের ‘ক্লিজ ইমেজ’ নিয়ে তরুণ ভোটারদের মন কাড়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতিও। জয় তার ফেসবুক পেজে লক্ষাধিক তরুণের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে ক্ষমতায় এলে ইন্টারনেটের মূল্য কমানোর ঘোষণাও দেন। তরুণদের টার্গেট করে প্রচারণা চালানো হচ্ছে ফেসবুক, টুইটারের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোয়।

এদিকে তরুণ প্রজন্মের মাঝে প্রকাশ্য প্রচারণায় অপেক্ষাকৃত পিছিয়ে আছে প্রধান বিরোধীদল বিএনপি। তবে দলটির প্রধান শরিক জামায়াতের সহযোগী সংগঠন ছাত্রশিবির ও হেফাজত সমর্থকরা সরকারের ব্যর্থতা এবং নির্যাতনের চিত্রগুলো তরুণ প্রজন্মের সামনে নিয়মিত তুলে ধরছে।

বিএনপির দাবি— যেহেতু নির্বাচনের বিষয়টি এখনও সুরাহা হয়নি তাই তারা প্রকাশ্য প্রচারণায় নেই। তবে তরুণদের টার্গেট করেই সাজানো হচ্ছে নির্বাচনি ইশতেহার।

bdn24x7.com, বাংলাদেশনিউজ২৪x৭.কম, এসএস, জের, ২২.০৯.২০১৩


Comments are closed.